খুলনা | বুধবার | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ১০ আশ্বিন ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে বিচার  চলবে কিনা, আদেশ ২০ সেপ্টেম্বর

খবর প্রতিবেদন | প্রকাশিত ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০১:০৭:০০

কারাগারে বসানো আদালতে খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার বিচার চলবে কি না-সেই সিদ্ধান্ত জানা যাবে ২০ পসপ্টেম্বর। খালেদা জিয়াকে বৃহস্পতিবারও আদালতে হাজির করতে না পারায় দুদকের আইনজীবী ফৌজদারি আইনের ৫৪০ এ ধারায় আসামির অনুপস্থিতিতেই আদালতের কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার আর্জি জানালে বিচারক শুনানি শেষে আদেশের এই দিন ঠিক করে দেন।
আর খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা জানতে কারাগারে তার সঙ্গে দেখা করার যে আবেদন তার আইনজীবীরা করেছিলেন,সে বিষয়ে কারাবিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ মোঃ আখতারুজ্জামান। খালেদা জিয়ার পক্ষে আদালতে শুনানি করেন তার দুই আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার ও সানাউল্লাহ মিয়া। আসামি জিয়াউল ইসলাম মুন্নার পক্ষে এড. আমিনুল ইসলাম এবং মনিরুল ইসলাম খানের পক্ষে আইনজীবী মোঃ আক্তারুজ্জামান শুনানিতে ছিলেন। আর মামলার বাদী ও তদন্তকারী সংস্থা দুর্নীতি দমন কমিশনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল। এতিমখানা দুর্নীতির মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত খালেদা জিয়াকে গত ৮ ফেব্র“য়ারি থেকে ঢাকার পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়েছে।
অসুস্থতার কারণে তাকে গত সাত মাসে একবারও আদালতে হাজির করতে না পারায় জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট মামলার যুক্তিতর্ক শুনানি শেষ করতে সরকারের নির্দেশে আদালত স্থানান্তর করা হয়েছে কারাগারের ভেতরে, যেখানে তিনি আছেন। 
গত ৫ সেপ্টেম্বর বিশেষ জজ আদালতের এই অস্থায়ী এজলাসে শুনানির প্রথম দিন খালেদা জিয়া নিজের অসুস্থতার কথা জানিয়ে বিচারককে বলেছিলেন, তিনি বার বার আদালতে আসতে পারবেন না, বিচারক তাকে যতদিন খুশি সাজা দিতে পারেন।  
এরপর বুধবার শুনানির নির্ধারিত দিনে বিচারক আখতারুজ্জামান আদালতে বলেন, প্রসিকিউশন থেকে জানানো হয়েছে, উনি (খালেদা জিয়া) কোর্টে আসতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন। তার মানে, আসতে অনিচ্ছুক।
এরপর খালেদার অনুপস্থিতিতে এ মামলার বিচার কাজ চলবে কি-না সে বিষয়ে শুনানির জন্য বৃহস্পতিবার দিন রাখেন বিচারক।
এর আগে, বেলা ১১টা ৪৩ মিনিটে আদালতের কার্যক্রম শুরু হয়। শেষ হয় ১টা ৫ মিনিটে। মামলার যুক্তিতর্ক শুনানি উপলক্ষে গোটা আদালত এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। পুরনো কারাগারের সামনের সড়কে যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। বন্ধ রাখা হয় আশপাশের দোকানপাটও। মোতায়েন করা হয় বিপুল সংখ্যক আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য। প্রস্তুত রাখা হয় ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি।গত ৮ ফেব্র“য়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়া দণ্ডিত হওয়ার পর থেকে পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দী আছেন। 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ

ভারতকে জিততে দিল না আফগানিস্তান

ভারতকে জিততে দিল না আফগানিস্তান

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০২:১০



চট্টগ্রামে ট্রাকচাপায় নিহত ৫

চট্টগ্রামে ট্রাকচাপায় নিহত ৫

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৩:৫৮

পাঁচমিশালী নেতৃত্বে জনগণের আস্থা নেই

পাঁচমিশালী নেতৃত্বে জনগণের আস্থা নেই

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৩:৫৮


জনসভার তারিখ পেছাল বিএনপি

জনসভার তারিখ পেছাল বিএনপি

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৩:৫৬







ব্রেকিং নিউজ












তৃতীয় ফাইনাল নাকি স্বপ্ন ভঙ্গ

তৃতীয় ফাইনাল নাকি স্বপ্ন ভঙ্গ

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:৫৫