খুলনা | বুধবার | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ১০ আশ্বিন ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় ঐক্যে জামায়াত নয় : ড. কামাল

সংবিধানের আরও কিছু সংশোধনী দরকার, কিছু ঘাটতি আছে

খবর প্রতিবেদন | প্রকাশিত ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০১:০৪:০০

নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় ঐক্যে জামায়াতে ইসলামী থাকছে না বলে স্পষ্ট করে জানিয়েছেন গণফোরামের সভাপতি ও সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ড. কামাল হোসেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান। আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আইনজীবীদের করণীয় বিষয়ে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির শহিদ সফিউর রহমান মিলনায়তনে মতবিনিময় সভা হয়। সমিতির উদ্যোগে আয়োজিত এ সভায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ড. কামাল হোসেন বলেন, না। তাদের (জামায়াত) নেয়া হবে না। এক কথায় উত্তর না।
সাংবাদিকদের প্রশ্নটি ছিল, আগামী সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে যে সর্বদলীয় ঐক্যের ডাক দেয়া হয়েছে সেখানে দল হিসেবে জামায়াতে ইসলামী থাকছে কি না স্পষ্ট করুন। জামায়াত নিয়ে ড. কামাল আরও বলেন, জামায়াত দল হিসেবে স্বাধীনতাবিরোধী কাজ করেছেন। দল হিসেবে করেছে, এটাতো বলা যায় না যে ব্যক্তি হিসেবে করেছে। জামায়াত নিয়ে আমি যতদূর জানি, ওই দল থেকে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে কেউ ছিলেন কি না, তা জানতে পারলে আমাদের কাজে লাগবে। 
সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল হোসেন বলেছেন, ‘সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে (এস কে সিনহা) যারা অপমানিত করছে তারা অসভ্য। তাদের বিচার একদিন হবেই।’
আদালত স্থানান্তরের কোন কারণ থাকতে পারেন না উল্লেখ করে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘জেলখানায় আদালত এটা স্ববিরোধী কথা। জেলখানা জেলখানাই, আদালত আদালতই। জেলখানায় আদালত কেন হলো, কিভাবে হলো, কোন আইনে হলো।’ তিনি আরও বলেন, ‘বেসামরিক শাষণ সাধারণ কনস্টিটিউশনে যখন চলছে, তার মধ্যে তথাকথিত জেলখানায় আদালত গঠন করা হয়। এগুলো কেন করা হয়?’
তিনি বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী অবাধ ও সুষ্ঠ নির্বাচনের জন্য ২০০৭ সালে ২৩টি শর্ত দিয়েছিলেন। ওই শর্তগুলো এখনও প্রযোজ্য হতো, যদি তিনি বর্তমানে বিরোধী দলে থাকতেন। বিরোধী দলে থেকে যখন শর্তগুলো সমর্থন করেছিলেন, আশা করি, সরকারে থেকেও তিনি সমর্থন করবেন। সংবিধানের ৪৬ বছর পরে নিজের অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি সংবিধানের আরও কিছু সংশোধনী করা দরকার। এর মধ্যে কিছু ঘাটতি আছে, সেগুলো কীভাবে পুনরুদ্ধার করা যায়, সেগুলো লিখিত আকারে আপনারা দিন। তা একত্রিত করে, একটি কমিটি করে যেগুলো বিবেচনাযোগ্য, সেগুলো তুলে ধরা হোক। এই সংশোধনের লক্ষে একটি কমিশন গঠন করাও যেতে পারে। সরকারই এই কমিটি গঠন করতে পারে। আর সরকার না পারলে আমরা কমিশন গঠন করতে পারি।
সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকনের সঞ্চালনায় সমিতির সভাপতি এড. জয়নুল আবেদীনের সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন এড. খন্দকার মাহবুব হোসেন, এড. সুব্রত চৌধুরী, জগলুল হায়দার আফরিক প্রমুখ।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ

ভারতকে জিততে দিল না আফগানিস্তান

ভারতকে জিততে দিল না আফগানিস্তান

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০২:১০



চট্টগ্রামে ট্রাকচাপায় নিহত ৫

চট্টগ্রামে ট্রাকচাপায় নিহত ৫

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৩:৫৮

পাঁচমিশালী নেতৃত্বে জনগণের আস্থা নেই

পাঁচমিশালী নেতৃত্বে জনগণের আস্থা নেই

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৩:৫৮


জনসভার তারিখ পেছাল বিএনপি

জনসভার তারিখ পেছাল বিএনপি

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৩:৫৬







ব্রেকিং নিউজ












তৃতীয় ফাইনাল নাকি স্বপ্ন ভঙ্গ

তৃতীয় ফাইনাল নাকি স্বপ্ন ভঙ্গ

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:৫৫