খুলনা | রবিবার | ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২ পৌষ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

ব্যয় ১০ কোটি ১৮ লাখ : সরাসরি ন্যায্য মূল্যে বেচা-কেনা হবে পণ্য : প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা থাকবে কৃষকদের

ডুমুরিয়ায় নির্মাণাধীন ‘ভিলেজ সুপার মার্কেট’ আগস্টে উদ্বোধন : কাজের মান নিয়ে অভিযোগ

এস এম আমিনুল ইসলাম | প্রকাশিত ০৩ জুলাই, ২০১৮ ০০:৩১:০০

কৃষকদের ভাগ্য উন্নয়নে আধুনিক পদ্ধতিতে চাষাবাদের উপযোগী করে গড়ে তুলতে ও সরাসরি ন্যায্য মূল্যে তৃণমূলের কৃষি পণ্য ক্রয়ের লক্ষে খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার টিপনা গ্রামে নির্মিত হচ্ছে ‘ভিলেজ সুপার মার্কেট’। প্রায় ১০ কোটি ১৮ লাখ টাকা ব্যয়ে ২ একর ১০ শতক জমির উপর নির্মিত এ মার্কেটটি আগামী আগস্ট মাসে উদ্বোধন হবে বলে আশা করা হচ্ছে। তবে বিদেশী বিপুল পরিমাণ অর্থে মার্কেটটি নির্মিত হলেও এর গুনগতমান নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। ফলে ভবনের স্থায়িত্ব নিয়ে যথেষ্ট শঙ্কা রয়েছে। অবশ্য ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ভবন ত্র“টিমুক্ত করার জন্য সময় বেঁধে দেয়া হয়েছে। ত্র“টিমুক্ত করেই মার্কেটটি উদ্বোধন করা হবে।
প্রকল্প সূত্রে জানা গেছে, ২০১৫ সালে খুলনা জেলাধীন ডুমুরিয়া উপজেলার টিপনা গ্রামের শেখ বাড়ির সামনে ভিলেজ সুপার নামের এ মার্কেটটি নির্মাণের উদ্যোগ নেয় ইন্টারন্যাশনাল এনজিও ‘সলিডাড়িডাড নেটওয়ার্ক এশিয়া’। উদ্যোগটি বাস্তবায়নে নেদারল্যান্ডের অর্থায়নে ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে ২ একর ১০ শতক জমির উপর ১০ কোটি ১৮ লাখ টাকা ব্যয়ে মার্কেটটির আনুষ্ঠানিক কাজ শুরু হয়। নির্মাণ কাজের মধ্যে রয়েছে ডিপো, ১০ হাজার লিটার উৎপাদন ক্ষমতার চিলার আইচ ফ্যাক্টরী, মসজিদ, ইলেকট্রিক্যাল ম্যাকানিক্যাল রুম, হর্টি ক্যালচার প্রসেসিং জোন, হর্টি প্যাকেজিং জোন, একোয়া প্রসেসিং জোন, একোয়া প্যাকেজিং জোন, একোয়া আড়ৎ, হর্টি আড়ৎ, ব্যাংক, চাইল্ড কেয়ার সেন্টার, ফার্মার ট্রেনিং সেন্টার, অফিস সিকিউরিটি রুম, টয়লেট জোন, বাউন্ডারী ওয়াল ইত্যাদি। ইতোমধ্যে ওইসব কাজের শতকরা ৯৮ ভাগ শেষ হয়েছে। এ অবস্থায় অভিযোগ উঠেছে মার্কেটটি নির্মাণ কাজের গুণগতমান তেমন ভালো হচ্ছে না। বিশেষ করে ছাদে ফাটল দেখা দিয়েছে। যার কারনে বৃষ্টির সময় ফাটল দিয়ে পানি এসে ভেতর ও দেওয়াল ভিজে যাচ্ছে। দেওয়ালের অনেক জায়গায় ফাটল দৃশ্যমান রয়েছে। কিছু কিছু জায়গার টাইলস উঠে যাচ্ছে। ভবনের বিভিন্ন জায়গায় ব্যাপকহারে বাঁশ ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়া নিম্নমানের উপকরণ ব্যবহার করা হয়েছে। ফলে ভবনের স্থায়ীত্ব নিয়ে যথেষ্ট শঙ্কা রয়েছে।
কৃষক তালেব হোসেন ও বিকাশ পালসহ সংশ্লিষ্ট এলাকার বাসিন্দারা জানান, মার্কেটটি চালু হলে কৃষকদের সরাসরি পণ্য বিক্রির অবাধ সুযোগ সৃষ্টি হবে। এ অঞ্চলের কৃষকদের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটবে এবং জীবন-যাত্রার মান উন্নত হবে। অর্থনীতিতেও এর বড় ধরনের ভূমিকা রাখবে। কিন্তু ভবন নির্মাণে অনিয়ম ও দুর্নীতি হয়েছে। যার কারনে কাজের মান খারাপ হয়েছে। ফলে প্রকল্পের আসল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য অর্জনে শঙ্কা রয়েছে। অল্প সময়ের মধ্যেই ভবনের বেহাল অবস্থা সৃষ্টির শঙ্কা রয়েছে। 
ভিলেজ সুপার মার্কেটের সাইট ইঞ্জিনিয়ার অনিরুদ্ধ কুমার সরকার বলেন, মার্কেটটি চালু হলে খুলনা, সাতক্ষীরা, নড়াইল ও যশোর এলাকার তৃণমূল কৃষকদের কাছ থেকে ন্যায্য মূল্যে সরাসরি কৃষি পণ্য (ফল-মূল, শাক-সবজি, দুধ, মাছ ইত্যাদি) ক্রয় করে দেশের বিভাগীয় শহরগুলোর আগোড়া সুপার শপে বিক্রি করা হবে। বিদেশেও রপ্তানি করা যাবে। এছাড়া এখানে কৃষকরা নিয়মিত প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আধুনিক পদ্ধতিতে চাষাবাদের উপযোগী হয়ে গড়ে উঠবে। তিনি আরও বলেন, কৃষকরা যাতে কোনভাবেই প্রতারিত ও ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত না হয় সে বিষয় বিভিন্ন এনজিও প্রতিনিধি ও স্থানীয় চেয়ারম্যান-মেম্বরের সমন্বয়ে গঠিত ট্রাস্টি বোর্ড মনিটরিং করবেন। আর এ মার্কেটে মধ্যস্বত্ব ভোগীদের কোন স্থান নেই। ফলে প্রকৃতপক্ষে কৃষকরাই লাভবান হবে।
ভিলেজ সুপার মার্কেটের হেড অব বিজনেস তানভীর রহিম এ প্রতিবেদককে বলেন, ভবণ ত্র“টিমুক্ত করার জন্য ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে সময় বেঁধে দেয়া হয়েছে। সুতরাং ত্র“টিমুক্ত হওয়ার পর আগামী আগস্ট মাসে মার্কেটটির উদ্বোধন করা হবে।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ



১৯৭১ সালের এক ভয়াল রাত

১৯৭১ সালের এক ভয়াল রাত

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:১০

বাংলাদেশ

বাংলাদেশ

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:১০



এক বীরের বুকভরা বেদনা

এক বীরের বুকভরা বেদনা

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:১০

খুলনা বিজয়ের রথে

খুলনা বিজয়ের রথে

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:১০

গুরুদাসী : এক বীরাঙ্গণা নারী

গুরুদাসী : এক বীরাঙ্গণা নারী

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:১০

শপথ

শপথ

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:১০

এইতো মোদের স্বাধীনতা

এইতো মোদের স্বাধীনতা

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:১০

অভূতপূর্ব ইতিহাস

অভূতপূর্ব ইতিহাস

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:১০


ব্রেকিং নিউজ