যশোর ঈদগাহ ময়দানে ছয় বছর পরে হচ্ছে ঈদের জামাত


যশোর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে বৃষ্টির পানি জমে কাদায় একাকার হওয়ায় গত ছয় বছর মুসল্লিরা ঈদের নামাজ পড়তে পারেনি। বাধ্য হয়ে ঈদগাহের পাশের রাস্তায় নামাজ আদায় করেছেন। কিন্তু এবার সেই পরিস্থিতি থেকে পরিত্রাণ পেতে পৌরসভার পক্ষ থেকে আগেই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে পুরো ঈদগাহ মাঠ ত্রিপল ও সামিয়ানা দিয়ে ঢেকে দেয়া হয়েছে। ফলে এবার ঈদের দিন বৃষ্টি হলেও নামাজ আদায়ে কোন সমস্যা হবে না। আগামী ২ সেপ্টেম্বর সুসজ্জিত ঈদগাহ ময়দানে ঈদুল আযহার প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এখানে ১০ হাজার মুসল্লি নির্বিঘেœ নামাজ আদায়ের সুযোগ পাবেন।
যশোর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ কমিটির সদস্য ও প্রেসক্লাব সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন বলেন, ২০১২ সাল থেকে এ পর্যন্ত মোট ১২টি ঈদের জামাত ঈদগাহের পাশের রাস্তায় হয়েছে। বর্ষা মৌসুমে ঈদ হওয়ায় ঈদগাহের মাঠ নামাজ পড়ার উপযোগী ছিল না। এ জন্য বাধ্য হয়ে রাস্তায় নামাজ আদায় করতে হয়েছে। সর্বশেষ গত ঈদুল ফিতরের নামাজও রাস্তায় হয়েছে। এবার ঈদুল আযহা উপলক্ষে যশোর পৌরসভার উদ্যোগে পুরো ঈদগাহ মাঠ ত্রিপল দিয়ে ঢেকে দেয়া হয়েছে। এ কারণে এদিন বৃষ্টি হলেও মাঠে কোন সমস্যা হবে না। মুসল্লিরা নির্বিঘেœ নামাজ আদায় করতে পারবে।
যশোর পৌরসভার মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু জানান, বর্ষার কারণে ছয় বছর ধরে ঈদগাহ মাঠে নামাজ আদায় করা যায়নি। এ জন্য এবার যাতে নির্বিঘেœ ঈদগাহ মাঠে নামাজ আদায় করা যায় সেই জন্য পুরো মাঠ ত্রিপল ও সামিয়ানা দিয়ে ঢেকে দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে ব্যাপক সাজ সজ্জার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। পুরো মাঠ থাকবে সিসি ক্যামেরার আওতায়। এছাড়া লাইটিং, ফ্যান ও মাইকের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তিনি বলেন, এরআগে কখনো এমন জাঁকজমকপূর্ণভাবে ঈদগাহ সাজনোর ব্যবস্থা করা হয়নি। এবার আমরা মুসল্লিদের স্বস্তিতে নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা করেছি। ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

 


footer logo

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।