খুলনা | বৃহস্পতিবার | ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২০ | ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

খুবিতে আন্তর্জাতিক সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে ৫০ গবেষণা নিবন্ধ উপস্থাপন

প্রাকৃতিক উৎস থেকে আহরিত উপাদানে তৈরি ওষুধে ক্যান্সারসহ বিভিন্ন রোগ নিরাময়ের আশাবাদ 

খবর বিজ্ঞপ্তি | প্রকাশিত ১৮ জানুয়ারী, ২০২০ ০০:৫৬:০০

প্রাকৃতিক উৎস থেকে আহরিত উপাদানে তৈরি ওষুধে ক্যান্সারসহ বিভিন্ন রোগ নিরাময়ের আশাবাদ 

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসী ডিসিপ্লিন এবং ফাইটোকেমিক্যাল সোসাইটি অব ইউরোপের আয়োজনে ন্যাচারাল প্রোডাক্টস ফর হেল্দি লিভিং (স্বাস্থ্যকর জীবন ধারণের জন্য প্রাকৃতিক পণ্য) শীর্ষক তিন দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে প্যারালাল সেশনে ৫০টি গবেষণা নিবন্ধ উপস্থাপন করা হয়। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জর্ডান, রুমানিয়া, মালয়েশিয়া, ভারতসহ ১০টি দেশের ৩০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক বিজ্ঞানী এই সম্মেলনে যোগ দিচ্ছেন। গতকাল ১৩ টি সেশন অনুষ্ঠিত হয়। বিভিন্ন গবেষণা নিবন্ধে গবেষক বিজ্ঞানীবৃন্দ তাদের সংশ্লিষ্ট বিষয়ে গবেষণালব্ধ পেপারে নতুন নতুন তথ্য-তত্ত্ব ও উপাত্ত উপস্থাপন করেন। গবেষকবৃন্দ প্রাকৃতিক উৎস থেকে আহরিত উপাদানে তৈরি ওষুধে ক্যান্সারসহ বিভিন্ন রোগ নিরাময়ের আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তারা আরও বলেন প্রকৃতির সাথে আমাদের নিবিড় শারীরিক সম্পর্ক রয়েছে। প্রাকৃতিক বিভিন্ন বৃক্ষ, লতা-গুল্ম, শাক-সবজি, ফল-ফুল যা আমরা ভক্ষন করি তার মধ্যেই অনেক রোগ নিরাময়ের উপাদান রয়েছে। বিশ্বব্যাপী আয়ুর্বেদ ও ইউনানী ওষুধের চাহিদা বাড়ছে। চীন ও ভারত ইতোমধ্যে বিরাট বাজার দখল করে আছে। বাংলাদেশেও এর বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে। তবে বিজ্ঞানীরা সতর্ক করে দেন প্রাকৃতিক পণ্য থেকে ওষুধ তৈরির ক্ষেত্রে উন্নতমানের ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা ও যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ না করলে মান বজায় থাকে না। যার ফলে কোনো ক্ষেত্রে শরীরের জন্য ক্ষতিকর হয়ে দাঁড়ায়। তবে আয়ুর্বেদ পণ্য যেহেতু সরাসরি প্রাকৃতিক তাই পরিপাকীয় কাজে এর উপকারিতাও বেশি। আমাদের এখন এই প্রাকৃতিক পণ্য থেকে ওষুধ তৈরির ক্ষেত্রে উন্নত শিল্প তথা বিশেষায়িত ফার্মাসিটিক্যালস শিল্প স্থাপন এবং সে সাথে উন্নত প্রযুক্তিও কাজে লাগাতে হবে। দ্বিতীয় দিনের সেশনে ভারতের আসাম ইউনিভার্সিটির ড. অনুপম ডি তালুকদার, লিভার পুল জন মুরস বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর সত্য সরকার, জর্ডান ইউনিভার্সিটির প্রফেসর মোহাম্মদ এস মোবাররক, ভারতের যাদবপুর ইউনিভার্সিটির প্রফেসর পুলক কে মুখার্জি, আসাম ইউনিভার্সিটির প্রকাশ রায় চৌধুরী, যুক্তরাষ্ট্রের মিসিসিপি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর মোহাম্মদ ইলিয়াস, লিভার পুল জন মুরস বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. লুৎফুন নাহার, মালয়েশিয়ার সায়েন্স ইউনিভার্সিটি টেনোলজির ড. নোরাজাহ বিনতি বাশার, আসাম ইউনিভার্সিটির অভিজিৎ মিত্রসহ প্রমুখ ৫০ জন গবেষক-বিজ্ঞানী, শিক্ষাবিদ বিভিন্ন বিষয়ের উপর তাদের নিবন্ধ উপস্থাপন করেন। এর মধ্যে জর্ডান ইউনিভার্সিটির প্রফেসর মোহাম্মদ এস মোবাররক এন্টিক্যান্সার এজেন্ট হিসাবে গৌণ বিপাক উদ্ভিদের কার্যকরীতার উল্লেখ করে আশাবাদ ব্যক্ত করেন দুরারোগ্য ব্যাধি ক্যান্সার নিরাময়ে বিশ্বব্যাপী নানামুখী নিরন্তর গবেষণা চলছে। তবে আশার কথা প্রাকৃতিক উপাদান থেকে অনেকাংশে এই রোগ নিরাময়ের ওষুধের আশাব্যঞ্জক কার্যকারিতা পাওয়া যাচ্ছে। নিকট ভবিষ্যতে এর ভালো ফলাফল পাওয়া যাবে এটা আশা করা যায়। ভারতের যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব ন্যাচারাল প্রডাক্ট স্টাডিজের পরিচালক প্রফেসর পুলক কে মুখার্জি তার গবেষণা নিবন্ধে ভারতবর্ষের প্রাচীন আয়ুর্বেদ চিকিৎসার বিভিন্ন প্রাকৃতিক উপাদান এবং বায়ো-ইকোনোমির সম্ভাবনার কথা তুলে ধরে এই ক্ষেত্রে নতুন নতুন শিল্প স্থাপন ও আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারে উপর গুরুত্বারোপ করেন। প্রত্যেকটি নিবন্ধ উপস্থাপন শেষে প্রশ্নোত্তর পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও গতকাল রাতে পোস্টার প্রেজেন্টেশন, পুরস্কার বিতরণ করা হয়। দক্ষিণ এশিয়ায় এই বিষয়ে আন্তর্জাতিক সম্মেলন এই প্রথম খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ












ক্রিকেটার মিরাজের বাসায় চুরি

ক্রিকেটার মিরাজের বাসায় চুরি

২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২০ ০০:৪৬