খুলনা | মঙ্গলবার | ২১ জানুয়ারী ২০২০ | ৮ মাঘ ১৪২৬ |

শিরোনাম :

Shomoyer Khobor

ঢাকাকে হারিয়ে কোয়ালিফায়ারে চট্টগ্রাম

বিধ্বংসী আমিরে রাজশাহীকে হারিয়ে বিপিএল ফাইনালে খুলনা

ক্রীড়া প্রতিবেদক  | প্রকাশিত ১৪ জানুয়ারী, ২০২০ ০০:৩৫:০০

মোহাম্মদ আমীরের বিধ্বংসী বোলিংয়ে রাজশাহীকে এক প্রকার বিধ্বস্ত করে রাজশাহী রয়েলকে হারিয়ে বঙ্গবন্ধু বিপিএলে প্রথম দল হিসেবে ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে খুলনা টাইগার্স। গতকাল সোমবার মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে সন্ধ্যায় প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে ২৭ রানে রাজশাহী রয়েলসকে পরাজিত করে। যে ম্যাচে মোহাম্মদ আমীর একাই নেন ৬ উইকেট। এর আগে এলিমেনটর ম্যাচে ঢাকা প্লাটুনকে ৭ উইকেটে হারিয়ে ২য় কোয়ালিফায়ারে উন্নীত হয়েছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। 
কোয়ালিফায়ার ম্যাচে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে অবশ্য শুরুতেই রাজশাহী বোলারদের তোপে পড়ে খুলনা। ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই মোহাম্মদ ইরফানের জোড়া শিকার হন মেহেদী হাসান মিরাজ (৮ বলে ৮) আর রাইলি রুশো (০)। ১৫ রানে ২ উইকেট হারায় খুলনা। তৃতীয় উইকেটে শামসুর রহমান শুভকে নিয়ে সেই বিপদ কাটিয়ে উঠেন নাজমুল হোসেন শান্ত, গড়েন ৬৮ রানের জুটি। ৩১ বলে ৩২ রান করে রবি বোপারার শিকার হয়ে শুভ ফিরলে ভাঙে এই জুটিটি। তবে দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরির পর প্লে-অফের গুরুত্বপূর্ণ লড়াইয়েও দারুণ এক ইনিংস খেলেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। তার হার না মানা হাফসেঞ্চুরিতে ভর করেই রাজশাহী রয়্যালসের বিপক্ষে ৩ উইকেটে ১৫৮ রানের চ্যালেঞ্জিং পুঁজি করে খুলনা টাইগার্স। এর মধ্যে ইনিংসের ১৮.২ ওভারে ইরফানের বলে হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে পড়ে ১৬ বলে ২১ রান নিয়ে মাঠ ছাড়েন মুশফিক। শান্ত শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ৫৭ বলে ৭৮ রানে। লড়াকু এ ইনিংসে ৭টি বাউন্ডারির সঙ্গে ৪টি ছক্কা হাঁকান বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। ৫ বলে ১টি করে চার-ছক্কায় ১২ রান করে অপরাজিত ছিলেন নাজিবুল্লাহ জাদরান। 
জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই খুলনার বোলারদের তোপের মুখে পড়ে রাজশাহীর ব্যাটসম্যানরা। বিশেষ করে মোহাম্মদ আমীরের বোলিংয়ের সামনে অসহায় হয়ে পড়ে রাজশাহী। দলের খাতায় ৩৩ রান যোগ হতেই ৬ ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে দেন খুলনার বোলাররা। তবে এরপরই দলের হাল ধরেন শোয়েব মালিক। দারুণ ব্যাটিং করলেও শেষ পর্যন্ত দলকে জেতাতে পারেননি তিনি। যতক্ষণ উইকেটে ছিলেন ততক্ষণ ভরসা ছিলো রাজশাহীর। ৫০ বলে ৮০ রান করে মোহাম্মদ আমীরের বলে শোয়েব মালিক আউট হয়ে গেলে রাজশাহীর জয়ের আশা শেষ হয়ে যায়। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ১৩১ রান করে অল আউট হয়। খুলনার হয়ে দুর্দান্ত বোলিং করেন মোহাম্মদ আমীর। মাত্র ১৭ রান দিয়ে একাই প্রতিপক্ষের ৬ ব্যাটসম্যানকে প্যাভিলিয়ানের পথ চেনান তিনি। এছাড়া মেহেদী হাসান মিরাজ ২টি এবং ফ্রাইলিঙ্ক ও শহীদুল একটি করে উইকেট নেন। 
এদিকে বিপিএলের এলিমিনেটর ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ব্যাটিং ব্যর্থতায় মাত্র ৬০ রানে তারা হারিয়ে ফেলে ৭ উইকেট। স্রোতের বিপরীতে দাঁড়িয়ে লড়াই করলেও মুমিনুল হক (৩১) দলকে বিপদমুক্ত করতে পারেননি। তবে শাদাব খান আর থিসারা পেরেরা ৩০ বলে ৪৪ রানের জুটি গড়ে ঢাকার ড্রেসিংরুমে স্বস্তি ফিরিয়ে আনে। ৪১ বলে ৫ চার ও ৩ ছক্কায় ৬৪ রানে অপরাজিত ছিলেন শাদাব। ৩ উইকেট নিয়েছেন রায়াড এমরিট, দুটি করে রুবেল হোসেন ও নাসুম আহমেদ। ১৪৪ রানের পুঁজি নিয়ে ঢাকা লড়াই করতে পারেনি একদমই। ক্রিস গেইল (৩৮), জিয়াউর রহমান (২৫) আর ইমরুল কায়েসকে (৩২) হারিয়ে ১৪ বল আগেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় চট্টগ্রাম। ফাইন লেগে মাশরাফির এক হাতে নেওয়া গেইলের ক্যাচই যা একটু আনন্দ দিতে পেরেছে ঢাকার ভক্তদের। মাত্র ১৪ বলে ৩৪ রানে অপরাজিত ছিলেন চট্টগ্রামের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। 
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ

উদ্বোধনী দিনে ৪ ম্যাচ অনুষ্ঠিত 

উদ্বোধনী দিনে ৪ ম্যাচ অনুষ্ঠিত 

২১ জানুয়ারী, ২০২০ ০০:০০













ব্রেকিং নিউজ



৫১ বোতল ফেন্সিডিলসহ  একজন গ্রেফতার

৫১ বোতল ফেন্সিডিলসহ  একজন গ্রেফতার

২১ জানুয়ারী, ২০২০ ০০:৫২







খসড়া তালিকায় ভোটার  ১০ কোটি ৯৬ লাখ

খসড়া তালিকায় ভোটার  ১০ কোটি ৯৬ লাখ

২১ জানুয়ারী, ২০২০ ০০:৪০