খুলনা | সোমবার | ২১ মে ২০১৮ | ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

স্বাধীনতার ৪৬ বছরেও সঠিক মুক্তিযোদ্ধা নিরুপণ না হওয়ায় হতাশা

এনায়েত আলী বিশ্বাস | প্রকাশিত ২৬ মার্চ, ২০১৭ ০২:১৪:০০

দেখতে দেখতে স্বাধীনতার ৪৬ বছর পেরিয়ে গেল। বিশ্বের অন্যান্য স্বাধীনতাপ্রাপ্ত দেশের কথা বলতে পারব না। তবে আমাদের দেশে যা ঘটে গেছে তা একদিকে যেমন দুঃখজনক অন্যদিকে তেমন বিরল। স্বাধীনতার স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্ব-পরিবারে নিষ্ঠুরভাবে নিহত হওয়া, স্বাধীনতার ৪ বীর সেনাকে কারাগারে হত্যা করা, স্বাধীনতার বিপক্ষ শক্তির গাড়িতে স্বাধীনতার পতাকা তুলে দেওয়া, যেদেশে মুক্তিযোদ্ধার সংজ্ঞা এতদিন পরেও সঠিকভাবে নিরুপণের অভাবে সঠিক মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই হচ্ছে না, সেদেশে নতুন করে যাচাই-বাছাই কার্যক্রম শুরু হলেও শেষ পর্যন্ত তাও স্থগিত হওয়ায় জনমনে তীব্র ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।
এদেশ ৩০ লাখ শহিদ আর ২ লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে স্বাধীন হয়েছে। বিভিন্ন তথ্যমতে ভারত ও বাংলাদেশের অভ্যন্তরে মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা ছিল বড় জোর ১ লাখ। যদিও স্বাধীনতা সংগ্রামে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সাহায্যকারীর সংখ্যা নিরুপণ করা অসম্ভব ব্যাপার। নানাভাবে মৃত্যুবরণ করেছে ৩০ লাখ। বাংলার স্বাধীনতা সংগ্রামে এদের আত্মত্যাগ কম গুরুত্বপূর্ণ নয়। তাদেরও মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পাওয়া উচিত। কিন্তু এখনও তা হয়নি। অথচ মুক্তিযোদ্ধার খেতাব পেয়েছে রাজাকাররা। যারা মুক্তিযুদ্ধে বিরোধীতা করেছে তারাও দলীয় পরিচয়ে অনেকে মুক্তিযোদ্ধা হয়ে অন্যান্য সুযোগ সুবিধা ভোগ করছে। প্রথম থেকে প্রভাব বিস্তার করে এ পর্যন্ত যত তালিকা হয়েছে সব তালিকা অন্তর্ভুক্ত হয়ে এখন এদের অনেককে বাদ দেওয়া বড় কঠিন। বর্তমান আওয়ামী লীগের প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু তনয়া শেখ হাসিনা প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কার্যক্রমের সর্বশেষ তালিকা শুরু করেছেন। এ কার্যক্রমে বলা হয়েছে, ভারতীয় তালিকা ও লাল মুক্তিবার্তায় যাদের নাম রয়েছে তাদের বাদে গেজেটভুক্ত ও নতুন আবেদনকারী প্রায় ১ লাখ ৫০ হাজার লোকের যাচাই-বাছাই হচ্ছে। লাল মুক্তিবার্তায় নাম রয়েছে অথচ অভিযোগ রয়েছে এমন মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই-বাছাই এর আওতায় আনা হচ্ছে। কারণ পূর্বেই উল্লেখ করেছি, অনেক ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা অর্থ বা লবিং এর কারণে মুক্তিযোদ্ধার সব তালিকাভুক্ত হয়ে গেছে। বর্তমান সরকার প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের চিহ্নিত করার জন্যে একটা সর্বজন গ্রাহ্য তালিকা প্রণয়নের চেষ্টা করছে। এটা একটি মহতি উদ্যোগ। কিন্তু তাও কি সম্ভব হচ্ছে? যতদুর জানি, অনেক উপজেলায় প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ে স্বচ্ছতার অভাব রয়েছে। ঘটনা অনেকটা সত্যও বটে। কারণ স্বাধীনতার ৪৬ বছরের মধ্যে অনেক অমুক্তিযোদ্ধা ও রাজাকার টাকার জোরে মুক্তিযোদ্ধা হয়ে গেছেন। এবারের যাচাই-বাছাইতে যে এমন ধরণের কাজ হচ্ছে না তাও হলফ করে বলা যাচ্ছে না। অনেক উপজেলায় অমুক্তিযোদ্ধা ও রাজাকার মুক্তিযোদ্ধারা বাদ পড়ছে ঠিকই, কিন্তু এক শ্রেণীর ব্যক্তি যারা টাকার জোরে এতদিন মুক্তিযোদ্ধা সেজে সমাজে প্রভাব বিস্তার করছিল তারা টাকার জোরে এবারও কোর্টের আশ্রয় নিয়ে হয়তো যাচাই-বাছাইতে টিকে যেতেও পারেন। প্রশ্ন উঠেছে, কমিটির সভাপতি অনেক জায়গায় বাইরের লোক হওয়ায় তারা উপজেলার মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্পর্কে কোন কিছুই জানেন না। তারা কিভাবে যাচাই-বাছাই করবেন? কিন্তু একথাও ঠিক, এলাকার লোক হলেও অনেক ক্ষেত্রে স্বজনপ্রীতির সম্ভাবনা থাকতে পারে। সেক্ষেত্রে বাইরের সভাপতি হলে এবং তিনি যদি কঠোর ও ন্যায়নিষ্ঠ হন তাহলে তার পক্ষে সম্ভব সঠিকভাবে যাচাই-বাছাই করা। ইতোমধ্যে কয়েকটা উপজেলার যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়া প্রত্যক্ষ করে দেখেছি, এলাকার লোক না হলেও সভাপতি হিসেবে সঠিকভাবে যাচাই-বাছাই করেছেন। কিন্তু গোল বাধে সেখানে, যেখানে টাকার জোরে স্বাক্ষী কেনা যায়। বর্তমানে দেশে ১৬০টি উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই এর বিরুদ্ধে হাই কোর্টে রীট হয়েছে এবং হাইকোর্ট ৩ মাসের জন্য কার্যক্রম স্থগিত করেছেন। সরকারও বিষয়টি নিয়ে বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছে। ইতোমধ্যে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সংসদীয় কমিটি, মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়, জামুকা ও কল্যাণট্রাষ্টের কর্মকর্তাদের নিয়ে বৈঠক করে রীটের বিরুদ্ধে মামলা পরিচালনার জন্য আইনজীবির কাছে কাগজপত্র জমা দিয়েছেন।
যখনই যে সরকার ক্ষমতায় এসেছেন সে সরকারই মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ের নামে দলীয় লোকদের অনেককে মুক্তিযোদ্ধা বানিয়েছেন। সেক্ষেত্রে দেশে বর্তমানে ভাতাভুক্ত মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা ২ লাখ ৫০ হাজার। বর্তমান যে যাচাই-বাছাই কাজ চলছে সেখানে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার ঘোষিত সুযোগ সুবিধাসহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধা লাভ করাই নতুন আবেদনকারীদের মূল লক্ষ্য। অবশ্যই দাবিদারদের মধ্যে ভুয়ার সংখ্যাই বেশি। এরমধ্যে আবার রাজনীতির ছোয়া বেশ স্পষ্ট। অনেক ক্ষেত্রে বিএনপি, জামায়াত জোট একত্রিত হয়ে রীট করেছে। দেশব্যাপী শুধু দাবিদার মুক্তিযোদ্ধাদের নয়, সেই সাথে লাল মুক্তিবার্তার ও গেজেটভুক্ত মুক্তিযোদ্ধাদের সঠিকতা যাচাই করে একটা সঠিক অবস্থানে আসা দরকার। কিন্তু অনেক উপজেলায় লাল মুক্তিবার্তা ও গেজেটভুক্ত মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই-বাছাই হচ্ছে না। এটা করা না হলে সঠিক মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই সম্ভব হবে না। যাচাই-বাছাই কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি খতিয়ে দেখা দরকার। স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বকে সুদৃঢ় করতে মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠিত হওয়া দরকার। কিন্তু এতদিন যাবত ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দাপটে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধারা কোণঠাসা হয়ে পড়েছিল। ভুয়ারা বাদ পড়লে প্রকৃতরা তাদের মর্যাদা ফিরে পাবে। কিন্তু যতদুর জানি, অনেক উপজেলায় ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ জমা পড়েনি। আর অভিযোগ জমা না পড়লে ভুয়ারা বাদ যাবে কিভাবে? এ বিষয়টা অনেককে ভাবিয়ে তুলেছে। হাই কোর্টে যারা রীট করেছে তারা বাদ পড়ার আশঙ্কায় একাজ করছে। টাকা থাকলে মামলা যে কেউ করতে পারে। আর পক্ষে-বিপক্ষের লোকতো থাকেই। যারা যাচাই-বাছাইতে বাদ পড়েছে তারাও টাকার জোরে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে। সরকার চেয়েছিল স্বাধীনতা দিবসের পূর্বে মুক্তিযোদ্ধা সংক্রান্ত চ্যাপ্টারটাকে ক্লোজ করতে। কিন্তু সেটা আর হলোনা। বাংলাদেশের রাজনীতিতে অনেক কিছু আশা থাকলেও সে আশা সব ক্ষেত্রে পূরণ হয়না। সরকারের এ আশা কবে যে পূরণ হবে তাও এই মুহূর্তে সঠিক করে বলা সম্ভব নয়। তবে সরকারও বসে নেই। তার স্বপ্ন পূরণের পথে প্রতিবন্ধকতাকে দূর করতে যথা শক্তি নিয়োগ করে মামলার মাধ্যমে বিষয়টাকে সমাধানে চেষ্টা নিয়েছে।
আমরা সর্বতোভাবে চাই, দেশের মুক্তিযোদ্ধাদের একটা সঠিক তথ্য বেরিয়ে আসুক। সরকার সকল প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে তার অভিষ্ট লক্ষে এগিয়ে যাক, দেশ ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দাপট থেকে মুক্ত হোক এটাই সবার কাম্য।

 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ

বাঙলার বৈশাখ : বাঙালির বৈশাখ

বাঙলার বৈশাখ : বাঙালির বৈশাখ

১৪ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:৪৯

বর্ষবরণ-১৪২৫

বর্ষবরণ-১৪২৫

১৪ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:৫২

বাংলা পঞ্জিকা ও বাংলার আবহাওয়া

বাংলা পঞ্জিকা ও বাংলার আবহাওয়া

১৪ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:৫০






বৈশাখে দেশী মজাদার খাবার

বৈশাখে দেশী মজাদার খাবার

১৪ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:৪৫

নতুনের আহ্বান

নতুনের আহ্বান

১৪ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:৪৫

বোশেখ 

বোশেখ 

১৪ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:৪৫

বৈশাখের আমেজ

বৈশাখের আমেজ

১৪ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:৪৪


ব্রেকিং নিউজ



যে কারণে রোজা নষ্ট হয় 

যে কারণে রোজা নষ্ট হয় 

২১ মে, ২০১৮ ০০:৫৯

যে কারণে রোজা নষ্ট হয় 

যে কারণে রোজা নষ্ট হয় 

২১ মে, ২০১৮ ০০:৫৯