খুলনা | বৃহস্পতিবার | ১৮ অক্টোবর ২০১৮ | ৩ কার্তিক ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

খুলনা-৪ আসনে নৌকার মাঝি কে?

আশরাফুল ইসলাম নূর  | প্রকাশিত ০১ অগাস্ট, ২০১৮ ০২:৩০:০০

খুলনা-৪ আসনে নৌকার মাঝি কে?

খুলনা-৪ আসনে রূপসা-তেরখাদা-দিঘলিয়াবাসীর কাছে প্রয়াত এস এম মোস্তফা রশিদী সুজা ছিলেন অতুলনীয় সংসদ সদস্য। তার মৃত্যুতে শূন্য হয়েছে আসনটি। তাই জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম মোস্তফা রশিদী সুজার অসমাপ্ত কাজের দায়িত্ব কাঁধে তুলে নিতে চান তিন নেতা। প্রয়াত সংসদ সদস্য এস এম মোস্তফা রশিদী সুজার একমাত্র পুত্র জেলা পরিষদ সদস্য খালেদীন রশিদী সুকর্ণকে সংসদ সদস্য হিসেবে চাইছেন দলের একটি অংশ। অপরদিকে প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান খুলনা-৬ ছেড়ে এই এলাকাতেই যোগাযোগ বাড়িয়েছেন বলে স্থানীয় একাধিক সূত্র জানায়। অন্যদিকে দীর্ঘদিন থেকেই সাংগঠনিক ভাবে তৎপর জেলা আ’লীগের সিনিয়র সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামরুজ্জামান জামাল। এর বাইরে আলোচিত কেউ প্রার্থী হলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না, এমন অভিমত দলীয় সূত্রের।
সূত্র মতে, খুলনা-৪ আসন শূন্য ঘোষণা করে প্রকাশিত গেজেট সংসদ সচিবালয় থেকে নির্বাচন কমিশনে পৌঁছাবে। গেজেট প্রকাশের ৯০ দিনের মধ্যে সংবিধান অনুযায়ী শূন্য আসনে উপ-নির্বাচনের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। ফলে বছরের শেষদিকে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পূর্বেই এ আসনটিতে উপ-নির্বাচনের জোর সম্ভাবনা রয়েছে। প্রসঙ্গত, গত ২৭ জুলাই এস এম মোস্তফা রশিদী (৬৫) সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন।
দলীয় একাধিক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, রূপসা-তেরখাদা-দিঘলিয়াবাসীর মনে সুজা ভাইজানের প্রতি অত্যন্ত দুর্বল। এজন্য এলাকায় তার উত্তরসূরীকেই দেখতে চায় সাধারণ নেতা-কর্মীরা। তবে এ বিষয়ে এখনিই কিছু বলতে নারাজ প্রয়াত মোস্তফা রশিদী সুজার একমাত্র পুত্র জেলা পরিষদের সদস্য খালেদীন রশিদী সুকর্ণ। পুরো শোকাবহ পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছেন তিনি।
তবে প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান বলেন, “প্রয়াত মোস্তফা রশিদী সুজার সাংগঠনিক ও জনপ্রতিনিধিত্বের দক্ষতা অতুলনীয়। তার শূন্য স্থান পূরণ হবার নয়। তিনি থাকলে তার আসনে দ্বিতীয় কাউকে প্রয়োজন হতো না। এলাকায় তাঁর দীর্ঘ অনুপস্থিতিতে কিছুটা সাংগঠনিক শূন্যতার সৃষ্টি হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে খুলনা-৪ আসনে দায়িত্ব দিলে দলের ঐক্যের ও এলাকাবাসীর উন্নয়নে আত্মনিয়োগ করবো।” এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বললেন, “খুলনা-৬ বা খুলনা-৪ আসনের দায়িত্ব নেবো সেটা নির্ভর করবে দলের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণীয় ফোরামের উপর।”
এদিকে জেলা আ’লীগের সিনিয়র সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামরুজ্জামান জামাল বলেন, “সুজা ভাইজানের তুলনা তিনি নিজেই। তার শূন্যতা পূরণ করা অসম্ভব। তবে দীর্ঘদিন রূপসা-তেরখাদা-দিঘলিয়াবাসীর সাথে মিশে যা জেনেছি-বুঝেছি তাতে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে দায়িত্ব দিলে আমি সর্বস্ব বিলিয়ে এলাকাবাসীর ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করবো। এলাকাবাসীও আমাকে গ্রহণ করবে এ বিশ্বাস আমার আছে।”

বার পঠিত

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ


নির্বাচনী ট্রেনে আওয়ামী লীগ

নির্বাচনী ট্রেনে আওয়ামী লীগ

০৭ অক্টোবর, ২০১৮ ০১:৩০












ব্রেকিং নিউজ











শারদীয় দুর্গোৎসবের  আজ মহানবমী

শারদীয় দুর্গোৎসবের  আজ মহানবমী

১৮ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:৪৯