খুলনা | বৃহস্পতিবার | ১৮ অক্টোবর ২০১৮ | ৩ কার্তিক ১৪২৫ |

বিশ্বকাপে নারী ক্রিকেট দল অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে হবে

১৬ জুলাই, ২০১৮ ০০:১০:০০

বিশ্বকাপে নারী ক্রিকেট দল অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে হবে

এই মুহুর্তে বাংলাদেশের নারী ক্রিকেট দলের অগ্রগতি অসামান্য। এই অগ্রগতির ধারায় যুক্ত হলো আরেকটি সাফল্য। এবার টি-টোয়েন্টি বাছাই পর্বের ফাইনালে তারা আয়ারল্যন্ডকে পরাজিত করে চ্যম্পিয়ন হয়েছে। এর আগে সেমি-ফাইনালে স্কটল্যান্ডকে হারিয়ে মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে জায়গা করে নিয়েছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। এই নিয়ে টানা তিনবার বাংলাদেশের মেয়েরা খেলবে টি-টোয়েন্টির বিশ্ব আসরে। ফেভারিট হিসেবে টুর্নামেন্ট শুরু করেছিল সালমা-ফারজানাদের বাংলাদেশ। আর ফেভারিটের মতোই জিতলো ফাইনালে।
গত জুনে পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন ভারতকে হারিয়ে এশিয়া কাপের শিরোপা অর্জন এবং স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে তিন দিনের ম্যাচে সিরিজ জেতায় বাংলাদেশের নারী ক্রিকেট দল ব্যাপক আলোচনায় আসে। দেশের মাটিতে ২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশ খেলেছিল স্বাগতিক হিসেবে। ২০১৬ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের টিকিট মিলেছিল বাছাইপর্ব উতরে। সেই ধারাবাহিকতা মেয়েরা আবারও ধরে রাখল। অন্যদিকে ছেলেদের ক্রিকেট দল যখন নানাভাবেই ব্যথর্তার পরিচয় দিয়ে চলেছে, তখন নারীদের এই সাফল্য অত্যন্ত গুরুত্বসহকারেই বিবেচনা করছেন বিশেষজ্ঞরা।
গতবারের বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ফাইনালে আইরিশদের কাছেই হেরেছিল বাংলাদেশ। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটাররা বতর্মানে যে ফর্মে আছে তাতে তাদের সামনে সুযোগ এসেছে নিজেদের নতুন উচ্চতায় মেলে ধরার। বলার অপেক্ষা রাখে না, এতদিন পর্যন্ত নারী ও পুরুষ সব ধরনের ক্রিকেটেই আমাদের অর্জন সীমাবদ্ধ ছিল কেবল দ্বিপক্ষীয় কিছু সিরিজ জয়ের মধ্যে। সম্প্রতি নারী ক্রিকেটাররা এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট মাথায় তোলার পর দ্বিপক্ষীয় সিরিজও নিশ্চিত করছে। এবার বাছাইপর্বের ফাইনাল নিশ্চিত করল। এসব জয়ের মধ্যদিয়ে শিরোপা জয়ের পাশাপাশি সম্ভাবনার নতুন বন্দরে পা রেখেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট। নারী ক্রিকেট দলের সাম্প্রতিক এসব জয়ের যে অনেক তাৎপর্য রয়েছে, তা নিশ্চিত। খেলাধুলা থেকে শুরু করে জীবনের প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রে আমাদের নারীরা এখনো পিছিয়ে রয়েছে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বাংলাদেশের ক্রিকেটে, বিশেষ করে ছেলেদের ক্রিকেটে যেখানে সাফল্য প্রায় শূন্য সেখানে মেয়েরা ইতিবাচকভাবেই এগিয়ে চলেছে। নারী ক্রিকেটের ধারাবাহিক এই জয় সার্বিকভাবে ক্রিকেটে অনুপ্রেরণা জোগাবে, অন্যদিকে নীতিনির্ধারকদেরও নারীদের জন্য খেলাধুলা থেকে শুরু করে সব ক্ষেত্রে সুযোগ-সুবিধা ও বরাদ্দ বাড়িয়ে দিতে দায়িত্বশীল করবে বলেই আমরা বিশ্বাস করি।
সর্বোপরি বলতে চাই, নারী ক্রিকেট দল যেহেতু ধারাবাহিক সাফল্য তুলে এনে ক্রিকেটবিশ্বে বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করছে, সেহেতু বিসিবি ও জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের প্রতি আমাদের পরামর্শ থাকবে, ক্রীড়াঙ্গনে নারীদের সব ধরনের সুযোগ-উন্নত অবকাঠামো থেকে বিশ্বমানের কোচিং স্টাফ নিয়োগ নিশ্চিত করতে হবে। নারী ক্রিকেটাররা প্রমাণ রেখে চলেছে যে, দলগত খেলা ক্রিকেটে আত্মবিশ্বাস থাকলে জয় পাওয়া কঠিন কোনো বিষয় নয়। ফলে নারীদের বিশ্বমানের ক্রিকেটার হিসেবে গড়ে তোলার ক্ষেত্রে সংশ্লি¬ষ্টরা সর্বোচ্চ উদ্যোগ নিক এটিই আমাদের প্রত্যাশা।

 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ









পরিবেশ দূষণ রোধে পদক্ষেপ নিন

পরিবেশ দূষণ রোধে পদক্ষেপ নিন

০৬ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০৫



বাল্য বিয়ে রোধে সচেতনতা জরুরী

বাল্য বিয়ে রোধে সচেতনতা জরুরী

০১ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:১০


ব্রেকিং নিউজ











শারদীয় দুর্গোৎসবের  আজ মহানবমী

শারদীয় দুর্গোৎসবের  আজ মহানবমী

১৮ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:৪৯