খুলনা | বৃহস্পতিবার | ১৫ নভেম্বর ২০১৮ | ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

আহত ইশতিয়াক শঙ্কামুক্ত, মামলা হয়নি

কচুয়ায় ছাত্রলীগ নেতার উপর হামলার  ঘটনায় গ্রেফতার ২, অবরোধ প্রত্যাহার

বাগেরহাট প্রতিনিধি | প্রকাশিত ১২ জুলাই, ২০১৮ ০০:৫৯:০০

কচুয়ায় ছাত্রলীগ নেতার উপর হামলার  ঘটনায় গ্রেফতার ২, অবরোধ প্রত্যাহার


বাগেরহাটের কচুয়া উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক হাজরা ইশতিয়াক হোসেন বাহাদুরের (৩২) উপর সশস্ত্র হামলার ঘটনার ৩০ ঘন্টা পার হলেও এখনো কোন মামলা হয়নি। তবে পুলিশ অভিযান চালিয়ে হামলার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দু’জনকে গ্রেফতার করেছে। তাদের থানায় রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলো, উপজেলার মঘিয়া ইউনিয়নের সহবাতকাঠি গ্রামের প্রয়াত আফছার উদ্দিন শেখের ছেলে আব্দুল আলীম শেখ (৫০) এবং একই উপজেলার কচুয়া সদরের হাবিবুর রহমান মোল্লার ছেলে মোঃ নাজমুল হোসেন সুমন (২৮)। গত মঙ্গলবার রাতে কচুয়ার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে এই দু’জনকে পুলিশ গ্রেফতার করে। এদিকে, গত মঙ্গলবার খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি সশস্ত্র হামলায় গুরুতর আহত ছাত্রলীগের আহ্বায়ক হাজরা ইশতিয়াক হোসেন বাহাদুরের শরীরে সফল অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়েছে। তিনি বর্তমানে শঙ্কামুক্ত।
এদিকে ছাত্রলীগ নেতার উপর হামলার প্রতিবাদে স্থানীয় ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, শ্রমিক লীগ এবং বাজার ব্যবসায়ী বণিক সমিতির ডাকা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও অভ্যন্তরীণ সড়কের ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হয়েছে। তবে তাদের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অব্যাহত থাকবে। ছাত্রনেতার উপর হামলার প্রতিবাদে স্থানীয় সংগঠনগুলো যৌথভাবে কচুয়া বাজারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা ও সড়ক অবরোধের তিন দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করে।
কচুয়া বাজার ব্যবসায়ী বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুল ইসলাম সুমন বলেন, কচুয়া বাজারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় স্থানীয় মানুষ ভোগান্তিতে পড়েছিল। তাদের ভোগান্তির কথা মাথায় রেখে আমাদের সংগঠন জরুরী সভা করে ধর্মঘট প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল থেকে বাজারের সব দোকানপাট খোলা রয়েছে। তবে ছাত্রলীগ নেতা ইশতিয়াকের উপর যারা সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে তাদের অতিদ্রুত গ্রেফতার করা না হলে আমরা আবারও কর্মসূচি দেব।
কচুয়া উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মনিরুজ্জামান ঝুমুর বলেন, গত মঙ্গলবার রাতে স্থানীয় আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও শ্রমিক লীগের নেতৃবৃন্দ যৌথভাবে ছাত্রলীগ নেতা ইশতিয়াকের উপর হামলার ঘটনায় জরুরী সভা করে। সভায় হামলাকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি জানানো হয়। তাদের দ্রুত গ্রেফতার করতে পুলিশ প্রশাসন কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার আশ^াস দেওয়ায় আপাতত বাজারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া এবং অভ্যন্তরীণ সড়ক অবরোধ কর্মসূচি প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে প্রতিদিন বিকেলে কচুয়া বাজারের জিরো পয়েন্টে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করবে দলের নেতা-কর্মীরা।
আহত ছাত্রলীগ নেতা ইশতিয়াক হোসেন বাহাদুরের চাচী ও কচুয়া উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা সরোয়ার বলেন, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইশতিয়াকের হাতে ও পায়ে দু’টি অস্ত্রোপচার হয়েছে। সে এখন সুস্থ ও শঙ্কামুক্ত। তবে পুরোপুরি সুস্থ হতে সময় লাগবে।
কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ রবিউল কবির বলেন, কচুয়া উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক হাজরা ইশতিয়াক হোসেন বাহাদুরের উপর হামলায় ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কচুয়ার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে এদের দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদের বিরুদ্ধে কচুয়া থানায় মারামারি, দখলসহ একাধিক মামলা রয়েছে। থানায় রেখে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ৩০ ঘন্টা পার হলেও এখনো কেন মামলা হয়নি জানতে চাইলে ওই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, সশস্ত্র হামলায় আহত ছাত্রনেতা ইশতিয়াক বর্তমানে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাই এখনো কোন মামলা হয়নি। তিনি সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলে বা পরিবারের কাউকে দিয়ে লিখিত এজাহার জমা দিলেই আমরা মামলা নথিভুক্ত করব।
প্রসঙ্গত, গত মঙ্গলবার ভোরে ভ্যানযোগে বাড়ি ফেরার পথে ছাত্রনেতা ইশতিয়াককে সাইনবোর্ড-কচুয়া সড়কের রাঢ়িপাড়া কাটা বটতলা এলাকায় সশস্ত্র দুর্বৃত্তরা এই হামলা চালায়। এই ঘটনার পর দলের বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও অভ্যন্তরীণ সড়ক অবরোধের কর্মসূচি ঘোষণা করে।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ