খুলনা | বুধবার | ২১ নভেম্বর ২০১৮ | ৭ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫ |

ধারালো অস্ত্রের বিস্তার রোধে উদ্যোগ নিন

০৫ জুলাই, ২০১৮ ০০:১০:০০

ধারালো অস্ত্রের বিস্তার রোধে উদ্যোগ নিন


আজকের যারা কিশোর বা তরুণ আগামীতে তারাই ধরবে দেশের হাল, ভাগ্য পরিবর্তন ঘটাবে জাতির। কিন্তু কখনো কখনো শঙ্কায় থমকে দাঁড়াতে হয়। কারণ যাদের নিয়ে আমাদের এই প্রত্যাশা তারা কি সঠিকভাবে বেড়ে উঠছে? সব মৌলিক চাহিদা পূরণে তারা কি পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রের সহায়তা পাচ্ছে? যদি না পায় তাহলে কী ভাবছে তারা তাদের নিজেদের নিয়ে? কিংবা পরিবার, সমাজ ও দেশ নিয়ে? ইতিবাচক কিছু যে ভাবছে না এর প্রমাণ বহুভাবে পাওয়া যাচ্ছে। কারণ আজকাল চারপাশে বেড়ে ওঠা কিশোর-তরুণদের মধ্যে নিজেকে গড়ে তোলার চেয়ে অল্পতেই বিত্তশালী বা প্রভাবশালী হয়ে ওঠার আকাঙ্খা প্রবল হয়ে উঠছে। এ জন্য যে কোনো অনৈতিক কাজে জড়িত হতেও তাদের যেন আপত্তি নেই যে কারণে হঠাৎ করেই দেশে উঠতি বয়সী তরুণ-যুবকদের মধ্যে উদ্বেগজনক হারে ধারালো অস্ত্রের ব্যবহার বেড়ে গেছে। অস্ত্রের জোরে তুচ্ছ ঘটনায় ধারালো অস্ত্রের ব্যবহার যেন নৈমিত্তিক বা সাধারণ ঘটনায় পরিণত হয়েছে। বিষয়টি উদ্বেগজনক।
চট্টগ্রামে ঈদ-পরবর্তী মাত্র আটচল্লি¬শ ঘণ্টায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তিনটি প্রাণ অকালে ঝরে যাওয়ার ঘটনা এড়িয়ে যাওয়ার নয়। কারণ এই ঘটনায় ঘাতক এবং হত্যাকাণ্ডের শিকার উভয়পক্ষই তরুণ বা যুবক। যে বয়সে একজন তরুণ বা যুবক সৃষ্টিশীল চিন্তায় সময় কাটাবে বা এর বাস্তব প্রয়োগে নিজেকে সম্পৃক্ত করবে, সেখানে কেন এরা হত্যাকাণ্ডের মতো ভয়ানক অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে-তা খতিয়ে দেখা দরকার। এদের হাতে এসব ধারালো অস্ত্রই বা আসছে কোথা থেকে? শুধু এরা নয়, পেশাদার অপরাধীরাও অপরাধ সংঘটনে আগ্নেয়াস্ত্র ফেলে ধারালো অস্ত্রের দিকে ঝুঁকছে। এটি কোনো শুভ লক্ষণ নয়। অভিজ্ঞজনরা মনে করছেন, যে ধরনের অস্ত্রই ব্যবহার হোক না কেন, উঠতি বয়সী তরুণদের এ ধরনের অপরাধে জড়িয়ে পড়াই অশনিসংকেত।
বাংলাদেশে বেকারের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। সেভাবে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হচ্ছে না। ফলে শিক্ষিত বেকারদের ওপর দিন দিন মানসিক চাপ বাড়ছে। যে কোনো উপায়ে অর্থ কামাইয়ের বেপরোয়া মনোভাব থেকে তাদের নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়াটা অস্বাভাবিক নয়। অন্যদিকে এদের হতাশাজনক জীবনাধার দেখে উঠতি বয়সীরা পথ হারাচ্ছে কিনা তা ভাববার সময় এসেছে। এছাড়া এলাকাভিত্তিক প্রভাব না থাকলে সমাজে টিকে থাকা একরকম কঠিন- এই ধারণা থেকেও উঠতি বয়সীরা নানাভাবে তাদের আধিপত্য প্রকাশে বেপরোয়া হয়ে উঠতে পারে। তাদের এই প্রবণতা রুখতে হলে প্রথমত যে কোনো ধরনের ক্ষতিকারক অস্ত্রের বিস্তার ও সহজলভ্যতা রোধ করতে হবে।
আমরা মনে করি অপরাধ অপরাধই, তা যে বয়সে বা যে মাধ্যমেই হোক না কেন। এক্ষেত্রে পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রকে সতর্ক অবস্থান নিতে হবে দ্রুত। কারণ এদের সবাই যে স্বেচ্ছায় এমন কঠিন ও নির্মম পথ বেছে নিচ্ছে তা নয়, হয়তো বাধ্যও হচ্ছে। এর পেছনে মূল কারণ কী, তা অনুসন্ধান করে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে হবে। নইলে অচিরেই আগামীর কাণ্ডারিরা পথ হারাবে যা আমাদের কারো জন্যই তা কোনো মঙ্গল বয়ে আনবে না। আনতে পারে না।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ

সিরাতুন্নবী (সাঃ) আজ

সিরাতুন্নবী (সাঃ) আজ

২১ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:১০







দখলমুক্ত হোক খুলনার সড়ক মহাসড়ক

দখলমুক্ত হোক খুলনার সড়ক মহাসড়ক

১১ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:১০



ভেজাল থেকে পরিত্রান চায় মানুষ

ভেজাল থেকে পরিত্রান চায় মানুষ

০৮ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:১০



ব্রেকিং নিউজ






পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) আজ

পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) আজ

২১ নভেম্বর, ২০১৮ ০১:২৩


নগরীতে মাদ্রাসা ছাত্র নিখোঁজ

নগরীতে মাদ্রাসা ছাত্র নিখোঁজ

২১ নভেম্বর, ২০১৮ ০১:২০