খুলনা | সোমবার | ২২ অক্টোবর ২০১৮ | ৭ কার্তিক ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

রাশিয়া বিশ্বকাপে যেসব খেলোয়াড় নজর কাড়তে পারে!

ক্রীড়া প্রতিবেদক | প্রকাশিত ১৪ জুন, ২০১৮ ০১:২৩:০০

ফুটবলের সবচেয়ে বড় মর্যাদার লড়াই বিশ্বকাপ। ফুটবল ভক্তরা এই আসরের জন্য অপেক্ষা করে থাকে চার বছর। নিজের প্রিয় দলের হাতে বিশ্বকাপ উঠুক এটা সবাই চায়। ৩২টা দলের অসংখ্য খেলোয়াড়ের প্রত্যেকে চায় নিজের নাম ইতিহাসের পাতায় অমর করে রাখতে, কিন্তু এত বড় আসরের চাপ সবাই সমানভাবে নিতে পারে না। এ কারণেই দেখা যায় বিশ্বকাপে গিয়ে অনেক নাম করা খেলোয়াড়ের ব্যর্থতা আর পাশাপাশি এক অচেনা খেলোয়াড়ের উঠে আসার রূপকথা এক সাথে রচিত হচ্ছে। 
ফুটবল মানেই টানটান উত্তেজনা, রোমাঞ্চ, রুদ্ধশ্বাসে ভরপুর। যে ম্যাচ অবলোকন করার জন্য উন্মুখ হয়ে থাকে বিশ্বের কোটি কোটি ফুটবল ভক্ত। রাত জেগে উপভোগ করে শৈল্পিক ফুটবল লড়াই। আর মাত্র ১২ দিন পর রাশিয়ার মাটিতে প্রদর্শন হবে ‘গ্রেটেস্ট শো অন দ্য আর্থ’। ফুটবলের বিশ্বসেরার এই লড়াইয়ে যে সকল খেলোয়াড় নজর কাড়তে পারেন সেই বিশ্ব তারকাদের দিকে চোখ বুলানো যাক।
লিওনেল মেসি: হতে পারে লিওনেল মেসির জন্য রাশিয়া বিশ্বকাপই সর্বশেষ অংশগ্রহণ। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বটা খুবই বাজে ভাবে কেটেছে মেসির দল আর্জেন্টিনার। ইকুয়েডরের বিপক্ষে বাঁচা-মরার ম্যাচে হ্যাটট্রিক করে দলের রাশিয়ার টিকিট এনে দেন মেসি একাই। অমরত্বের পথে মেসির একমাত্র আক্ষেপ এখন বিশ্বকাপের নাগাল না পাওয়া। তাই এবার সেই আক্ষেপ ঘুচাতে আরও অপ্রতিরোধ্য মেসিকে দেখা যাবে বলে বিশ্বাস ভক্তদের।
ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো: এই বিশ্বকাপে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মেসির সঙ্গে অনেক মিল পাওয়া যাচ্ছে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর। ৩২ বছর বয়সী রিয়াল মাদ্রিদের সুপারস্টারের জন্য রাশিয়ার বিশ্বকাপটাই হয়তো শেষ বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে। ৫ বারের ব্যালন ডি’অর জয়ী এই উইঙ্গারেরও মেসির মতো বিশ্বকাপের নাগাল না পাওয়ার আক্ষেপ রয়েছে। ব্যক্তি রোনালদোর নৈপুণ্যে রাশিয়ার মাঠে ফুটবল প্রেমীদের চোখ আটকে থাকবে সেটা নিশ্চিত।
নেইমার: গত বিশ্বকাপে মারাত্মক চোটে পড়ে নেইমারের মাঠ ছেড়ে যাওয়ার দৃশ্যটা এখনও ভুলতে পারেনি তাঁর ভক্তরা। সেবার আহত নেইমারের পথ ধরে ব্রাজিলও বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যায়। ২০১৭ সালের বার্সেলোনা ছেড়ে ফ্রান্সের ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ে (পিএসজি) পাড়ি জমান ব্রাজিলিয়ান সেনসেশন নেইমার। মেসির ছায়া থেকে বের হয়ে যেন আরও অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছেন ২৫ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড। ব্রাজিলের বস তিতের আশা, বিশ্বকাপেও নেইমার নিজের ফর্ম ধরে রাখবেন।
লুইস সুয়ারেজ: ফুটবল বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথম চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরবটা লুইস সুয়ারেজের দেশ উরুগুয়ের। এক সময় ফুটবল বিশ্বে রাজত্ব করা দেশটি এখন নিজেদের হারানো গৌরব খুঁজে ফিরছে। গৌরবোজ্জ্বল সোনালী অতীত ফিরিয়ে আনতে ল্যাটিন আমেরিকার এ দলটির অন্যতম ভরসা লুইস সুয়ারেজ। বার্সেলনার জার্সিতে লিওনেল মেসির সঙ্গে জুটি বেঁধে প্রতিপক্ষকে নিয়মিত নাকানি চুবানি খাওয়াচ্ছেন সুয়ারেজ। ২০১৮ বিশ্বকাপে সন্দেহাতীতভাবেই সুয়ারেজ বড় ফ্যাক্টর হিসেবে আবির্ভূত হবেন।
হ্যারি কেন: টটেনহাম হটস্পারের হয়ে স্বপ্নের মতো সময় কাটছে হ্যারি কেনের। আগামী বিশ্বকাপে ইংলিশদের নেতৃত্বে দেখা যেতে পারে তাঁকে। ওয়েইন রুনির যোগ্য উত্তরসূরি পেয়েছে ইংল্যান্ড সেকথা বলাই যায়। গত বছর ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে আরেক ইংলিশ কিংবদন্তি অ্যালেন শিয়ারারের এক বর্ষ পঞ্জিকায় গড়া ২২ বছর পুরোনো সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড ভেঙে ফেলেন তিনি। ক্লাবের হয়ে কাটানো সুসময়ের বাতাসটা বিশ্বকাপেও হয়তো প্রবাহিত করতে পারবেন স্পার্শদের প্রাণ ভোমরা।
আন্তোইন গ্রিজমান: ফরাসী অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার আন্তোইন গ্রিজমানকে নিয়ে বড় দল গুলোর মধ্যে টানাটানি চলেছে সাম্প্রতিক দল বদল গুলোতে। কিন্তু আপাতত নিজের ঠিকানা অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদে ভালোই আছেন তিনি। তাঁর হাত ধরে রোজি ব্লাঙ্কোসরা দারুণ সময় পার করছে। মেসি, রোনালদোর সঙ্গে ২০১৬ সালের ফিফার বর্ষসেরার সংক্ষিপ্ত তালিকায় এসেছিলেন একবার। এছাড়া চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও ২০১৬ সালের ইউরোর ফাইনালে ব্যর্থতার হিসাব নিশ্চই মেলাতে চাইবেন ২৬ বছর বয়সী এ ফ্রেঞ্চ ফরোয়ার্ড। আর নিজ দল ফ্রান্সের হয়ে এসকল হিসেব মেলানোর জন্য বিশ্বকাপ হচ্ছে উপযুক্ত মঞ্চ।
কিলিয়ান এমবাপ্পে: প্যারিস সেইন্ট জার্মেইতে (পিএসজি) নেইমার কাভানিদের সঙ্গে আক্রমণ ভাগের সেনানীর দায়িত্ব পালন করছেন ১৯ বছর বয়সী ফ্রেঞ্চ ফরোয়ার্ড কিলিয়ান এমবাপ্পে। মাত্র ১৯ মাসের মধ্যেই বিশ্বের সবচেয়ে উদীয়মান খেলোয়াড় হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন। হাতে নিয়েছেন ফ্রান্সের বর্ষসেরা তরুণ খেলোয়াড়ের পুরস্কার। এই টগবগে ফরাসির ওপর রাশিয়ায় তাই চোখ রাখতেই হবে।
ইডেন হ্যাজার্ড: রাশিয়ার বিশ্বকাপে দল হিসেবে বেলজিয়াম দর্শকদের খুব বেশি ভক্তি হয়তো আদায় করতে পারবে না। কিন্তু বেলজিয়ামের ২৬ বছর বয়সী উইঙ্গার ইডেন হ্যাজার্ড ঠিকই দর্শকদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকবেন। চেলসির প্রধান অস্ত্র হ্যাজার্ডের দিকে চোখ রয়েছে রিয়াল মাদ্রিদের। তাঁর নিজেরও ইচ্ছা সেরকম। এজন্য তাকে ধরে রাখতে সাপ্তাহিক ৩ লাখ ৪০ হাজার ইউরো বেতনের লোভনীয় প্রস্তাব দিয়েছে বর্তমান ক্লাব চেলসি। বিশ্বকাপের মঞ্চে বেলজিয়ামের আশার প্রদীপ হ্যাজার্ড যে আলো ছড়াবেন তাতে গোটা বিশ্বের ফুটবল প্রেমীরা আলোকিত হবেন।
টিমো ওয়ার্নার: গত বছরের জুনে জার্মানিকে কনফেডারেশন্স কাপ জয়ে পথ দেখিয়ে নিজেকে এর মধ্যে প্রমাণ করেছেন ২১ বছর বয়সী নবীন তারকা টিমো ওয়ার্নার। কনফেডারেশন্স কাপে গোল্ডেন বুট জেতা এ তরুণ স্ট্রাইকার নিশ্চয়ই বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের আবার সাফল্য এনে দিতে চাইবেন। রাশিয়ার বিশ্ব আসরেও জিততে চাইবেন কোন পুরস্কার।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ

বদলে যাবে মংলা বন্দর

বদলে যাবে মংলা বন্দর

০৩ জুলাই, ২০১৮ ০২:০১













ব্রেকিং নিউজ


সাড়ে ৫শ’ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার ৩

সাড়ে ৫শ’ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার ৩

২২ অক্টোবর, ২০১৮ ০১:২০