খুলনা | শুক্রবার | ১৭ অগাস্ট ২০১৮ | ২ ভাদ্র ১৪২৫ |

বাজারে বিষমুক্ত আম সরবরাহ নিশ্চিত করুন

২৩ মে, ২০১৮ ০০:১০:০০

বাজারে বিষমুক্ত আম সরবরাহ নিশ্চিত করুন


বাজারে বিষমুক্ত আম সরবরাহ ও বিক্রি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসন বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করলেও অনেকাংশে তা মানা হচ্ছে না। অধিক মুনাফার আশায় কিছু অসাধু ব্যবসায়ী প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে অপরিপক্ক আম পাকানোর জন্য ব্যবহার করছে ক্ষতিকারক ক্যামিকেল। ক্যামিকেল মেশানোর একদিন পর এ সব আম কার্টুনে ভরে ট্রাকে করে পাঠানো হচ্ছে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায়। অথচ এই সাতক্ষীরাতেই উৎসবমুখর পরিবেশে পরিপক্ক আম পাড়া শুরু হয়েছে। প্রথম দফায় ৪ মেট্রিক টন আম বিদেশে রপ্তানীর জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। ফলে বিদেশিদের জন্য একদিকে যেমন বিষমুক্ত আম পাঠানোর মহোৎসব চলছে, অন্যদিকে দেশীয় বাজার বিষযুক্ত আমে সয়লাব হয়ে যাচ্ছে। বিষয়টি উদ্বেগজনক।
দেশব্যাপী সাতক্ষীরার আমের সুখ্যাতি রয়েছে। নানা জাতের বাহারি আমে ছেয়ে গেছে বাগান। চাষিরা এবারও বিষ ও বালাইমুক্ত আম উৎপাদন করেছেন। চলতি বছর সাতক্ষীরার ৪১ শ’ হেক্টর জমিতে আম চাষ হয়েছে। এর থেকে উৎপাদন পাওয়া যাবে ৪০ হাজার মেট্রিক টন। দেশের চাহিদা মিটিয়েও বিদেশে সাতক্ষীরার মিষ্টি আমের চাহিদা রয়েছে। প্রথম পর্যায়ে বাজারে উঠছে হিমসাগর জাতের আম। এরপরই আসছে ল্যাংড়া ও আম্র্রপালি। আর ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাজারে সাতক্ষীরা থেকে মোট ২শ’ মেট্রিক টন বিষ ও বালাইমুক্ত নিরাপদ আম রপ্তানি হবে। প্রথম দফায় এ জেলা থেকে ৪ মেট্রিক টন আম বিদেশে রপ্তানির জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে।
মৌসুমের শুরুতেই বাজারে বিষমুক্ত আম সরবরাহ ও বিক্রি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সাতক্ষীরা জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। ব্যবসায়ীরা যাতে আমে ক্ষতিকারক ক্যামিকেল না মিশিয়ে বাজারজাত করতে পারে সে জন্য সচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি নিয়িমিত বাজার পরিদর্শনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এর পরও কিছু অসাধু ব্যবসায়ী অধিক মুনাফার আশায় প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে বাগান থেকে অপরিপক্ক আম পেড়ে দ্রুত পাকানোর জন্য ক্ষতিকারক ক্যামিকেল ব্যবহার করছে। প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দেয়ার জন্য ব্যবসায়ীরা বাজার ছেড়ে পার্শ্ববর্তী নিরাপদ এলাকায় আম পাকানোর ব্যবস্থা নিয়েছে। এ সব আম কার্টুনে ভরে ট্রাকে করে পাঠানো হচ্ছে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায়। আর এ আম কিনে প্রতারিত হচ্ছেন আমাদের দেশের ক্রেতারা। পড়ছেন স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যে। সম্প্রতি শহরের ইটাগাছা এলাকা থেকে ক্যামিকেল মেশানো ট্রাক ভর্তি ৬ লাখ টাকা মূল্যের ৩’শ মণ আম জব্দ করে ডিবি পুলিশ। তবে, এ সময় ডিবি পুলিশ কোন অসাধু ব্যবসায়ীকে আটক করতে পারেনি। এছাড়া দেবহাটায় এক আম ব্যবসায়ীকে ক্যামিকেল মেশানোর অপরাধে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
সাতক্ষীরার আম স্বাদে ও গন্ধে অতুলনীয়। বিশ্বের বাজারে এর চাহিদা রয়েছে। চাষিদের প্রশিক্ষণ দিয়ে রফতানিযোগ্য আম উৎপাদনে কৃষি বিভাগ ও বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা সহায়তা করেছে। আমে যাতে কোন অসাধু ব্যবসায়ী আর ক্ষতিকারক ক্যামিকেল না মেশোতে পারে সেজন্য প্রশাসনেরও রয়েছে নজরদারী। এরপরও অসাধু ব্যবসায়ীদের থামানো যাচ্ছে না। আমাদের অভিমত দেশিয় ও বিদেশের বাজারে সাতক্ষীরার উৎপাদিত আমের সুনাম ধরে রাখতে হলে ক্ষতিকারক ক্যামিকেল মিশানো বন্ধে এখনই কঠোর নজরদারী জরুরী।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ

দৃশ্যমান হলো রূপসা রেল সেতু 

দৃশ্যমান হলো রূপসা রেল সেতু 

১৭ অগাস্ট, ২০১৮ ০০:১০


‘রক্তে ভেজা পনেরই আগস্ট‘

‘রক্তে ভেজা পনেরই আগস্ট‘

১৫ অগাস্ট, ২০১৮ ০০:০০


নৌপথ নির্বিঘœ রাখার উদ্যোগ নিন 

নৌপথ নির্বিঘœ রাখার উদ্যোগ নিন 

১৩ অগাস্ট, ২০১৮ ০০:১০




অভিযানের মধ্যেও মিলছে মাদক

অভিযানের মধ্যেও মিলছে মাদক

০৮ অগাস্ট, ২০১৮ ২৩:২৫





ব্রেকিং নিউজ











ফাইনালে বাংলাদেশের মেয়েরা

ফাইনালে বাংলাদেশের মেয়েরা

১৭ অগাস্ট, ২০১৮ ০১:০২