খুলনা | শনিবার | ২৬ মে ২০১৮ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

ভোট গ্রহণ শেষে প্রেস ব্রিফিংয়ে মেয়র প্রার্থী মুজ্জাম্মিল হক

ব্যর্থ নির্বাচন কমিশন ও দলীয় সরকারের অধীনে আগামীতে সুষ্ঠু-নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয় 

নিজস্ব প্রতিবেদক | প্রকাশিত ১৬ মে, ২০১৮ ০১:২৯:০০

ব্যর্থ নির্বাচন কমিশন ও দলীয় সরকারের অধীনে আগামীতে সুষ্ঠু-নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয় 

খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠু-নিরপেক্ষ হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মেয়র প্রার্থী মাওলানা মুজ্জাম্মিল হক। গতকাল মঙ্গলবার নির্বাচনের ভোট গণনা শেষে দলীয় কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিংকালে তিনি এ অভিযোগ করেন। মাওলানা মুজ্জাম্মিল হক বলেন, ব্যর্থ নির্বাচন কমিশন ও দলীয় সরকারের অধিনে আগামীতে সুষ্ঠু-নিরপেক্ষ নির্বাচন আশা করা যায় না। যার প্রমাণ আজকের (গতকাল) কেসিসি’র নির্বাচন। বিভিন্ন ভোট কেন্দ্র দখল, ভোট ডাকাতি, ভোটারদের হয়রানি ও ভোট না দিতে দেওয়া, এজেন্টদের বুথ থেকে বের করে দেওয়া ও মারধর, জাল ভোট প্রদানে পুলিশের সহযোগিতার অভিযোগ রয়েছে। নিরাপত্তার ভয়ে অনেক ভোটাররা ভোট কেন্দ্রেই আসেনি। 
অনিয়মের চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, ৩০নং ওয়ার্ডের রূপসায় প্রাইমারী স্কুল, হাইস্কুল, ইউসুফ স্কুলের সেন্টারগুলোতে জাল ভোটের অভিযোগে সাময়িকভাবে ভোট গ্রহণ বন্ধ হয়। ১২নং ওয়ার্ডের স্যাটেলাইট স্কুল কেন্দ্র দখল করে নেয়। ১২, ১৩ ও ৩০নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন কেন্দ্রে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। শুধুই নৌকার ভোটাররা ঢুকছে। ৩১নং ওয়ার্ড কার্যালয়, লবণচরা প্রাথমিক বিদ্যালয়, শিপইয়ার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয় মারামারি হয়েছে। গোয়ালখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইব্রাহিমীয়া মাদ্রাসা সেন্টার বন্ধ ও ওয়ার্ডের সকল অফিস থেকে লোকজন বের দেয় বলে অভিযোগ করেন মেয়র প্রার্থী। 
তিনি আরও বলেন, ২২নং ওয়ার্ডে সকল সেন্টার দখল ও ২নং ওয়ার্ডের নগরঘাট কৃষ্ণমোহন স্কুলে, রেলিগেট ও আর, আর এফ এ ব্যাপক কারচুপি হয়েছে, তবে সেখান প্রশাসন ছিল নিরব। ২৮নং ওয়ার্ডের ৬টি কেন্দ্রের মধ্যে ৪টি কেন্দ্র বহিরাগতরা দখলে নেয় বলে অভিযোগ রয়েছে। ব্যাপকহারে জাল ভোট দেয়া হয়েছে সেখানে। ১৪নং ওয়ার্ডে মহিলা কলেজ সেন্টারে বোমা বিস্ফোরণের মাধ্যমে আতঙ্ক ছড়ানো হয়েছে। ২৯নং ওয়াডের্র সবুরুন্নেসা স্কুল ও কলেজ সেন্টারে প্রকাশ্যে নৌকায় সিল মারতে বাধ্য করা হয়েছে। 
এ সময় উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর নায়েবে আমীর মাওলানা আব্দুল আউয়াল, দলের জেলা সভাপতি মাওলানা আব্দুল্লাহ ইমরান, মাওলানা মুজাফ্ফার হোসাইন, শেখ মোঃ নাসির উদ্দিন, নগর সেক্রেটারী মুফতী আমানুল্লাহ, জেলা সেক্রেটারী শেখ হাসান ওবায়দুল করীম, হাফেজ আসাদুল্লাহ, নগর শ্রমিক আন্দোলনের সভাপতি আলহাজ্ব জাহিদুল ইসলাম, ইশা ছাত্র আন্দোলন জেলা সভাপতি শেখ আমীরুল ইসলাম, নগর সভাপতি ইসহাক ফরিদি ও দলটির সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থীগণ প্রমুখ। 
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ




সেহরীতে বরকত রয়েছে

সেহরীতে বরকত রয়েছে

২৬ মে, ২০১৮ ০১:১৪










ব্রেকিং নিউজ




সেহরীতে বরকত রয়েছে

সেহরীতে বরকত রয়েছে

২৬ মে, ২০১৮ ০১:১৪

সেহরীতে বরকত রয়েছে

সেহরীতে বরকত রয়েছে

২৬ মে, ২০১৮ ০১:১৪