খুলনা | শুক্রবার | ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৫ আশ্বিন ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

বন বিভাগের তদন্ত কমিটি গঠন

মংলায় কার্গো ডুবির ৩৬ ঘন্টা পার হলেও শুরু হয়নি উদ্ধার তৎপরতা

মংলা প্রতিনিধি | প্রকাশিত ১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ০১:২১:০০

মংলা বন্দরের হারবাড়িয়া এলাকায় পশুর নদীতে কয়লা বোজাই কার্গো ডুবির ৩৬ ঘন্টা অতিবাহিত হলেও এখনও শুরু হয়নি উদ্ধার তৎপরতা। নদীতে গোনের ভরা জোয়ারের তোড়ে ধীরে ধীরে পানির নিচে তলিয়ে যাচ্ছে জাহাজটি। এ ব্যাপারে বন বিভাগের পক্ষ থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে এবং কর্তৃপক্ষকে অবহিত করার জন্য থানায় জিডি করা হয়েছে।
মেসার্স ভূঁইয়া ট্রান্সপোর্টের মালিক দেবব্রত দত্ত জানান, ভরা কটালের জোয়ারের স্রোতের তোড়ে ৭শ’ ৭৫ মেট্রিক টন কয়লাবোঝাই কার্গো জাহাজ বিলাশ তলা ফেটে ডুবে যায়। কার্গোটি বন্দরের হারবারিয়া এ্যাংকোরেজ থেকে কয়লা বোঝাই করে আমদানিকারক ঢাকার মেসার্স শাহারা এন্টারপ্রাইজে যাওয়ার কথা ছিল। তিনি জানান, প্রথমে জাহাজটি এ্যাংকোরেজ বয়া থেকে মংলা ঘষিয়াখালী নদীর উদ্দেশ্যে যাওয়ার সময় হারবাড়িয়ার ৫নং বয়া এলাকার পশুর নদীতে দুর্ঘটনায় পতিত হয়। ডুবে যাওয়ার পর প্রায় ৩৬ ঘন্টা অতিবাহিত হচ্ছে, কিন্তু এখন পর্যন্ত বন্দর বা মালিক পক্ষের কোন উদ্ধার তৎপরতা নেই। 
কয়লাবাহী কার্গো জাহাজ দুর্ঘটনার ক্ষতিকর বিষয় জানতে চাইলে পরিবেশ অধিদপ্তর বাগেরহাট কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক (এডি) মোঃ এমদাদুল হক জানান, কয়লায় কার্বন রয়েছে। বিষাক্ত কয়লার এ কার্বন জলজ প্রাণি ও সুন্দরবন এবং পশুর নদীর প্রাণিবৈচিত্র-জীববৈচিত্রের ক্ষতি করবে। ডুবে যাওয়া কার্গো জাহাজে থাকা কয়লার নমুনা সংগ্রহের জন্য আমাদের একটি টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে। তবে জাহাজটি ১০-১২ ফুট পানির নিচে থাকায় নমুনা সংগ্রহ করা সম্ভব হচ্ছে না। এদিকে দুর্ঘটনার ৩৬ ঘণ্টা অতিবাহিত হলেও আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান সাহারা এন্টারপ্রাইজের দায়িত্বপ্রাপ্ত কোনো ব্যক্তি ঘটনাস্থলে পৌঁছেনি।
এ বিষয়ে মংলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রবিউল ইসলাম জানান, কার্গো জাহাজ ডুবির বিষয়টি আমরা জানতে পেরে তাৎক্ষণিকভাবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। কার্গোতে থাকা ৮ জন স্টাফ, ১ জন পাহারাদারকে অন্য কার্গোতে থাকা লোকজন দ্রুত উদ্ধার করে। তাদের কোন ক্ষতি হয়নি বলে জানান তিনি। ডুবে যাওয়া কার্গোর পাহারাদার মোঃ আনোয়ার হোসেন জানান, ভাটার সময় পশুর নদীর চরে কার্গোটি আটকে গেলে তখন কার্গোর মালিক পক্ষকে জানানো হয়। কিন্তু তারা কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় জোয়ারের সময় পানির চাপে তলা ফেটে কার্গোটি ডুবে যায়। 
মংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার মাস্টার কমান্ডার এম ওয়ালি উল্লাহ বলেন, কার্গোর মালিক পক্ষ ঢাকা থেকে রওয়ানা দিয়েছে, তারা এলে উদ্ধার কাজ শুরু হবে। এ ছাড়াও পুলিশ, কোস্ট গার্ড ও বন্দর কর্তৃপক্ষ কার্গো উদ্ধারে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে। সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মাহমুদুল হাসান জানান, এ ব্যাপারে চাঁদপাই স্টেশন কর্মকর্তা মোঃ কামরুল আহসান বাদী হয়ে মংলা থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেছেন। এছাড়া চাঁদপাই রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) মোঃ শাহীন কবিরকে প্রধান করে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। জাহাজ ডুবির কারণ ও কয়লায় পরিবেশের কী ধরনের ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে তা পর্যবেক্ষণ করে যত দ্রুত সম্ভব প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ




আজ ১০ মহররম পবিত্র আশুরা 

আজ ১০ মহররম পবিত্র আশুরা 

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:৫৮

কেসিসিতে আজ ও কাল সাপ্তাহিক ছুটি বাতিল

কেসিসিতে আজ ও কাল সাপ্তাহিক ছুটি বাতিল

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:৫৭









ব্রেকিং নিউজ




আজ ১০ মহররম পবিত্র আশুরা 

আজ ১০ মহররম পবিত্র আশুরা 

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:৫৮

কেসিসিতে আজ ও কাল সাপ্তাহিক ছুটি বাতিল

কেসিসিতে আজ ও কাল সাপ্তাহিক ছুটি বাতিল

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:৫৭





খুলনায় সেঞ্চুরিতে নজর কাড়লেন সোহান

খুলনায় সেঞ্চুরিতে নজর কাড়লেন সোহান

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:৫০


অভিষেকেই আবু হায়দার রনির চমক

অভিষেকেই আবু হায়দার রনির চমক

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:৪৫