খুলনা | বৃহস্পতিবার | ১৯ জুলাই ২০১৮ | ৪ শ্রাবণ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

বাছাইয়ে ২৮ কাউন্সিলর প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল : বৈধ ২০৯

নিজস্ব প্রতিবেদক   | প্রকাশিত ১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ০১:২১:০০

খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে সাধারণ ওয়ার্ডে ১৩ জন কাউন্সিলর প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেছে রিটার্ণিং অফিসার। গতকাল সোমবার যাচাই-বাছাইয়ের দ্বিতীয় দিন তাদের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। এর মধ্যে ‘ঢ’ ফরম এ স্বাক্ষর না থাকার কারণে নগরীর ২৪নং ওয়ার্ডের আ’লীগ মনোনীত প্রার্থী এএনএম মঈনুল ইসলাম’র প্রার্থীতা বাতিল করা হয়। এ নিয়ে গত দু’দিনে কাউন্সিলর পদে সাধারণ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ২৮ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। দু’দিনব্যাপী যাচাই-বাছাই শেষে গতকাল বিকেলে কাউন্সিলর পদে ২০৯ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেন রিটার্ণিং অফিসার মোঃ ইউনুচ আলী।  
গতকাল মনোনয়ন বাতিল হওয়া প্রার্থীরা হলেন সাধারণ ৯নং ওয়ার্ডের প্রার্থী কাজী ফজলুল কবির টিটো (আয়কর রিটার্ণ না থাকায়), ১১নং ওয়ার্ডের প্রার্থী মোস্তফা হাওলাদার (শ্রমিক) ও ফারজানা লিপি (‘ঢ’ ফরম ও হলফনামায় স্বাক্ষর নাই), ১২নং ওয়ার্ডের প্রার্থী আজমল হোসেন (‘ঢ’ ফরম এ স্বাক্ষর নেই), ১৩নং ওয়ার্ডের প্রার্থী আবুল বাশার (শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ নেই), ১৯নং ওয়ার্ডের প্রার্থী ফজলুর রহমান (ঋণ খেলাপী), ২১নং ওয়ার্ডের প্রার্থী মোল্লা ফরিদ আহমেদ (‘ঢ’ ফরম এ স্বাক্ষর নেই), ২২নং ওয়ার্ডের প্রার্থী নূর ইসলাম শেখ (ঋণ খেলাপী) ও মাসুদ পাটোয়ারী, ২৪নং ওয়ার্ডের প্রার্থী এএনএম মঈনুল ইসলাম (‘ঢ’ ফরম এ স্বাক্ষর নেই), ৩০নং ওয়ার্ডের প্রার্থী আলমগীর হোসেন (ঋণ খেলাপী), ৩১নং ওয়ার্ডের প্রার্থী আলমগীর হোসেন (‘ঢ’ ফরম এ স্বাক্ষর নেই) ও জি এম আবদুর রব (রিটার্ণ নেই)। 
এর আগে গত রবিবার সংরক্ষিত (মহিলা) ৯ জন ও সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থীর মধ্যে ৬ জনের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছিল। 
আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয় সূত্র জানায়, গতকাল শেষ দিন ৯ নং ওয়ার্ডসহ ১১ থেকে ৩১নং ওয়ার্ডের ১৩৫ জন কাউন্সিলর প্রার্থীর মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই করা হয়। প্রথম দিন ৯নং ওয়ার্ড বাদে ১ থেকে ১০ং ওয়ার্ডের ৫৪ জন কাউন্সিলর প্রার্থী, সংরক্ষিত আসন ৪৮ জন ও ৫ জন মেয়র প্রার্থীর মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই করা হয়েছিল। যাচাই-বাছাই শেষে গতকাল মেয়র পদে ৫ জন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৭০ জন এবং সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৩৯ জনের মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।  
রিটার্নিং কর্মকর্তা ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ ইউনুচ আলী জানান, ঋণ খেলাপী হওয়া, আয়কর সনদ না দেওয়া এবং হলফনামা (ঢ) ফরমে স্বাক্ষর না করায় এসব মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়া প্রার্থীরা আগামী ১৭ এপ্রিল থেকে ১৯ এপ্রিলের মধ্যে বিভাগীয় কমিশনারের কাছে আপিল করতে পারবেন। তিন দিনের মধ্যে আপিল নিষ্পত্তির পর প্রার্থী যদি বৈধ হয়, তাহলে তালিকায় সংযুক্ত করা হবে। 
তিনি জানান, কাউন্সিলর পদে ২৩৭ জন মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর মধ্যে ৪৮ জন ছিল সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদের প্রার্থী এবং ১৮৯ জন সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী। দু’দিন যাচাই-বাছাইকালে সাধারণ কাউন্সিলর পদে }} ২ পাতার ১ কলাম
১৯ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৯ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। গত রবিবার মনোনয়পত্র বাছাইয়ের প্রথম দিন মেয়র পদে ৫ প্রার্থীকেই বৈধ ঘোষণা করা হয়। 
তারা হলেন, আ’লীগ মনোনীত প্রার্থী দলের মহানগর শাখার সভাপতি তালুকদার আব্দুল খালেক, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও মহানগর সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু, জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী শফিকুর রহমান মুশফিক, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত প্রার্থী অধ্যক্ষ মাওলানা মুজ্জাম্মিল হক এবং সিপিবি মনোনীত প্রার্থী দলের মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান বাবু।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ