খুলনা | শুক্রবার | ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৬ আশ্বিন ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

যুদ্ধাপরাধ : যশোরে আ’লীগ কর্মীসহ  ৫ আসামির বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন 

খবর প্রতিবেদন | প্রকাশিত ১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০৭:০০


একাত্তরে যুদ্ধাপরাধের মামলায় যশোরের বাঘারপাড়ার মোঃ আমজাদ হোসেন মোল্লাসহ পাঁচ আসামির বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন চূড়ান্ত করেছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থা।
গতকাল সোমবার সংস্থার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেনে তদন্ত প্রতিবেদনের সারসংক্ষেপ তুলে ধরেন সংস্থাটির জ্যেষ্ঠ সমন্বয়ক সানাউল হক। তিনি বলেন, “ছয় খণ্ডের প্রতিবেদনে আসামিদের বিরুদ্ধে আটক, নির্যাতন, হত্যার চারটি অভিযোগ আনা হয়েছে। এটি তদন্ত সংস্থার ৬৩তম প্রতিবেদন। মঙ্গলবার এ প্রতিবেদন প্রসিকিউশনে দাখিল করা হবে।”
আসামিদের মধ্যে আমজাদ হোসেন মোল্লা (৭৭) গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছেন। বাকিরা পলাতক। তদন্তে আসামিদের বিরুদ্ধে একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় ছয়জনকে হত্যা, আটক, নির্যাতনের প্রমাণ উঠে এসেছে।
সানাউল হক বলেন, “মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে আসামিরা যশোরের বাঘারপাড়া চাঁদপুর গ্রামের মোঃ ময়েনউদ্দিন ময়না ও মোঃ আয়েনউদ্দিন আয়নাকে অপহরণের পর হত্যা করেছে বলে তথ্য-উপাত্ত উঠে এসেছে তদন্তে। “এছাড়া একই থানার ও একই গ্রামের ডাঃ নওফেল উদ্দিন বিশ্বাসকে আটকের পর হত্যা করে আসামিরা। ডাঃ নওফেল মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের লোক ছিলেন। তিনি একজন হিতৈষী ব্যক্তি ছিলেন। সাধারণ মানুষসহ আহত মুক্তিযোদ্ধাদের তিনি চিকিৎসা দিতেন। ”
তদন্ত সংস্থার জ্যেষ্ঠ সমন্বয়ক আরো জানান, বাঘারপাড়া থানার গাদইঘাট গ্রামের মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের লোক, মুক্তিযোদ্ধাদের সহায়তাকারী সুরত আলী বিশ্বাস ও মোক্তার বিশ্বাসকে অপহরণ করে আটকে রেখে নির্যাতনের পর হত্যা করে আসামিরা। এছাড়াও মাগুরার শালিখা থানার সীমাখালী বাজার ঘাটের মাঝি রজব আলী বিশ্বাসকে আটক করে হত্যা করে তারা।
সানাউল হক বলেন, এসব ঘটনার আসামিদের বিরুদ্ধে যেসব তথ্য-প্রমাণ পাওয়া গেছে তার স্বপক্ষে সাক্ষীদের বক্তব্যও নেওয়া হয়েছে।
আটক আসামি আমজাদের পরিচয় তুলে ধরে সানাউল হক বলেন, যশোর বাঘারপাড়া থানার প্রেমচারা গ্রামের মৃত সোবহান মোল্লার ছেলে আমজাদ হোসেন মোল্লা বাঘারপাড়া থানার রাজাকার কমান্ডার ছিলেন। ১৯৭১ সালে মুসলিম লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। তবে বর্তমানে তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত।
তদন্ত কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ২০১৬ সালের ৪ এপ্রিল এ মামলার তদন্ত শুরু হয়। যশোর জেলা প্রশাসকের দেওয়া রাজাকারদের তালিকাতেও এই পাঁচ আসামির নাম রয়েছে। এ মামলায় সাক্ষী করা হয়েছে ৪০ জনকে।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ












চাপ, হুমকির মুখে  দেশ ত্যাগ করেছি

চাপ, হুমকির মুখে  দেশ ত্যাগ করেছি

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০৯


ব্রেকিং নিউজ




আজ ১০ মহররম পবিত্র আশুরা 

আজ ১০ মহররম পবিত্র আশুরা 

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:৫৮

কেসিসিতে আজ ও কাল সাপ্তাহিক ছুটি বাতিল

কেসিসিতে আজ ও কাল সাপ্তাহিক ছুটি বাতিল

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:৫৭





খুলনায় সেঞ্চুরিতে নজর কাড়লেন সোহান

খুলনায় সেঞ্চুরিতে নজর কাড়লেন সোহান

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:৫০


অভিষেকেই আবু হায়দার রনির চমক

অভিষেকেই আবু হায়দার রনির চমক

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:৪৫