খুলনা | সোমবার | ১৬ জুলাই ২০১৮ | ১ শ্রাবণ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

নয় নাবিক অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার

মংলা বন্দরের হারবাড়িয়া এলাকায় ৭শ’ ৭৫ মেঃ টন কয়লা বোঝাই কার্গো ডুবি

মাহমুদ হাসান, মংলা | প্রকাশিত ১৬ এপ্রিল, ২০১৮ ০১:৪৩:০০

মংলা বন্দরের হাড়বাড়িয়া এলাকায় কয়লা বোঝাই একটি কার্গো জাহাজ ডুবে গেছে। গত শনিবার দিবাগত রাত পোনে ৪টার দিকে ডুবোচরে আটকে তলাফেটে ৭শ’ ৭৫ মেঃ টন ধারণ ক্ষমতার এমভি বিলাস নামের কার্গো জাহাজটি সম্পূর্ণ ডুবে যায়। তবে এ ঘটনায় কোন নাবিক বা কেউ হতাহত হয়নি বলে জানান বন্দর কর্তৃপক্ষ। মালিক পক্ষ রাতে ডুবন্ত কার্গো জাহাজটি উদ্ধারের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে সার্ভে কাজ শুরু করেছে। কোস্ট গার্ড ও বন্দরের উদ্ধারকারী জাহাজ গিয়েও উদ্ধারে ব্যর্থ হয়েছে। এদিকে পশুর নদীতে জোয়ারের ভরা গোন হওয়ায় জাহাজটি নদীর তলদেশে বালু ভরাট হয়ে তলিয়ে যাচ্ছে। এটিকে দ্রুত উত্তোলন করতে না পারলে বন্দরের চ্যানেল দিয়ে দেশী-বিদেশী বাণিজ্যিক জাহাজ আগমন নির্গমনে বাধার সম্মুখীন হবে। 
মংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার বিভাগ জানায়, বন্দরের পশুর চ্যানেলের হাড়বাড়িয়ার ৯ নম্বর অ্যাঙ্করেজে বয়া এলাকায় কয়লা নিয়ে ইন্দোনেশিয়া পতাকাবাহী বিদেশী বাণিজ্যিক মাদারভেসেল ১৩ এপ্রিল মংলা বন্দরে আসে। এটি ৬নং বয়ার নোঙর করে গত ১৪ এপ্রিল সকালে ইন্দোনেশিয়ার জাহাজ অফজারবেটর থেকে এমভি বিলাস নামের একটি কার্গো জাহাজ কয়লা বোঝাই করে। গত শনিবার রাত ৯টার দিকে ৭শ’ ৭৫ মেট্রিক টন কয়লা বোঝাই কার্গোটি ছেড়ে কিনারায় সুন্দরবনের দক্ষিণ পাশে পৌঁছে। ভোররাতে কার্গোর মাস্টার ঢাকার মিরপুরের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়। পথিমধ্যে জাহাজটি ডুবোচরে আটকে যায়। মাস্টার তখন পুনরায় কিনারে আসার জন্য দ্রুত চালিয়ে মূল চ্যানেলের বাইরে চরের দিকে যেতে থাকেন। কিন্তু চর থেকে নামাতে না পেরে জাহাজটির তলাফেটে পুরোপুরি পশুর নদীতে ডুবে যায়। কার্গোতে থাকা ৯ নাবিকদের আর্তচিৎকারে ওখানে থাকা অন্যান্য কার্গো জাহাজের লোকজন ও নদীতে মাছ ধরতে থাকা জেলেরা নাবিকদের উদ্ধার করে। 
হারবার বিভাগে দায়িত্বে থাকা অপারেটর মোঃ জামাল উদ্দিন জানান, কার্গো জাহাজে থাকা ৯ নাবিক সবাই নিরাপদে রয়েছেন। নৌ-পরিবহন মালিক গ্র“পের মহাসচিব ওয়াহিদুজ্জামান খান পল্টু জানান, কার্গো জাহাজটি ডোবার সাথে সাথে আমাদের ও মেরিন সার্ভিসের পক্ষ থেকে ওখানে লোক পাঠানো হয়েছে জাহাজটি উদ্ধারের জন্য। বন্দরের কাছেও সাহায্য চাওয়া হয়েছে। এখন সার্ভে কাজ চলছে, যাতে এটাকে দ্রুত উত্তোলন করা যায় সে ব্যাপারেও চেষ্টা করা হচ্ছে। কার্গো ডুবির সাথে সাথে বন্দরের উদ্ধারকারী জাহাজ এমভি সিপশাকে রাতে পাঠানো হয়েছিল কিন্তু উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি
বাংলাদেশ জাহাজী শ্রমিক সংঘের সভাপতি মোঃ দুলাল হোসেন জানান, রাতে দুর্ঘটনার সাথে সাথে কোস্ট গার্ডের সাহায্য চাওয়া হয়। তারা দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে ডুবোচর থেকে জাহাজটি নামানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে। পরে বন্দরের কাছে সাহায্য চাওয়া হয়েছে। 
কার্গো জাহাজের ড্রাইভার আনিছুল হক জানিয়েছেন, কার্গো বোঝাই কয়লা ঢাকার মীরপুরের উদ্দেশ্যে যাওয়ার কথা ছিল। তিনি বলেন, কার্গোটি মূল চ্যানেলের বাইরে ডুবেছে। ফলে বন্দরের চ্যানেল ঝুঁকিমুক্ত, সচল ও নিরাপদ রয়েছে। জাহাজ চলাচলে কোন সমস্যা হচ্ছে না। ভাটার সময় জাহাজটির মাস্টার ব্রিজের আংশিক দেখা গেলেও জোয়ারের সময় পুরোপুরি তলিয়ে থাকছে। কার্গোডুবির ঘটনায় জাহাজের মাস্টার মোঃ ফরিদি মিয়া বাদী হয়ে মংলা থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেছেন। বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের সহ-সভাপতি বাহারুল ইসলাম বাহার জানান, নৌপরিবহন মালিক গ্র“প, নৌযান শ্রমিক ফেডারেশন ও কার্গো মালিকসহ একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করার প্রস্তুতি চলছে। সাথে সাথে সার্ভের কাজও চালানো হচ্ছে। কার্গোটি যাতে দ্রুত উত্তোলন করা যায় সে ব্যাপারে সবাই এক যোগে কাজ করবে বলে জানান তিনি। তবে কি পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা এখনও নির্ধারণ করা সম্ভব হয়নি। মংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার মাস্টার কমান্ডার এম অলিউল্লাহ জানান, জাহাজ ডুবির ঘটনায় বন্দর চেয়ারম্যানসহ একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করবেন। মালিক পক্ষকে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে এটিকে দ্রুত উত্তোলনের জন্য জোর তাগিদ দেয়া হয়েছে। যদি এতে ব্যর্থ হয় তবে বন্দর কর্তৃপক্ষ এটিকে নিজস্ব সম্পদ হিসেবে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলেও জানান হারবার মাস্টার।
এদিকে সুন্দরবনে আবারো কয়লা বোঝাই কার্গো জাহাজ ডুবির ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়ে সেভ দ্যা সুন্দরবন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান লায়ন ড. শেখ ফরিদুল ইসলাম বলেন, কয়লার জাহাজ ডুবিতে সুন্দরবনের জলজ-প্রাণীজ ও জীববৈচিত্রের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হবে। কারণ এ কয়লা সাধারণত ইটভাটাগুলোতে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এ কয়লায় সালফারের পরিমাণ বেশি থাকায় এটি পরিবেশকে মারাত্মকভাবে ক্ষতি করে। এছাড়া রামপাল তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র চালু হলে সুন্দরবনে এ ধরনের দুর্ঘটনা ক্রমশই বৃদ্ধি পাবে। তাই সুন্দরবনের সুরক্ষায় এখনই সরকারকে রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ অবস্থান থেকে সরে আসতে হবে। 
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ










আটরা গিলাতলায়  গাঁজাসহ আটক ১

আটরা গিলাতলায়  গাঁজাসহ আটক ১

১৬ জুলাই, ২০১৮ ০১:২৫




ব্রেকিং নিউজ










আটরা গিলাতলায়  গাঁজাসহ আটক ১

আটরা গিলাতলায়  গাঁজাসহ আটক ১

১৬ জুলাই, ২০১৮ ০১:২৫