খুলনা | মঙ্গলবার | ১১ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২৭ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

চা শ্রমিকদের উন্নয়নে কাজ  করছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী

খবর প্রতিবেদন | প্রকাশিত ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ০০:১০:০০

শুধু মালিক নয়, চা শ্রমিকদের উন্নয়নেও কাজ করছে সরকার। এমনকি চায়ের উৎপাদন বৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করেছে। চা শিল্পের উন্নয়নে মালিক ও শ্রমিকদের পারস্পরিক সহযোগিতা আরও বাড়াতে হবে। রাজধানীর বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটিতে গতকাল রবিবার সকালে বাংলাদেশ চা প্রদর্শনী-২০১৮ উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। ১৮ থেকে ২০ ফেব্র“য়ারি পর্যন্ত এ প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে। বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে গতকাল থেকে ২২ ফেব্র“য়ারি পর্যন্ত এই প্রদর্শনী চলবে।
প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, চায়ের গবেষণা ও এর বহুমুখি ব্যবহার বাড়াতে নজর দিতে হবে। দেশে বর্তমানে চায়ের উৎপাদন সাড়ে আট কোটি কেজি। যা ২০২৫ সালে ১৪ কোটি কেজিতে পৌঁছানোর চেষ্টা করছে সরকার। বাংলাদেশ চা প্রদর্শনী’ উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চায়ের বহুমুখী ব্যবহারের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। পানীয়ের পাশাপাশি খাদ্য ও প্রসাধনী হিসেবে চায়ের ব্যবহারের কথা বলেন তিনি। 
চা প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা বলেন, আমরা চাই, আমাদের চা সারা বিশ্বে নিজের স্থান করে নিক, আরও উন্নত হোক। শুরুতেই প্রধানমন্ত্রী নতুন প্রজাতির চা বিটি-২১ ক্লোন অবমুক্ত করেন। পরে, ডানকান ব্রাদার্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইমরান আহমেদ প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে নতুন প্রজাতির এই চায়ের চারা গ্রহণ করেন। প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে অল্প বৃষ্টিতে চা উৎপাদনের জন্য নতুন প্রজাতির ক্লোন উৎপাদনের তাগিদও দেন। অনুষ্ঠানে চা শিল্পের উন্নয়নে সাতটি ক্যাটাগরিতে প্রথম স্থান অধিকারী চা বাগানের মালিকদের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়।
একর প্রতি এক হাজার ৪৪৬ কেজি চা উৎপাদন করে শ্রেষ্ঠ চা বাগানের প্রথম পুরস্কার পেয়েছে হালদা ভ্যালি টি স্টেইট। সর্বোচ্চ নিলাম গড় মূল্য ও মানসম্পন্ন নিলামে বিক্রি করে চায়ের গুণগত মানের ভিত্তিতে এবং শ্রমিক কল্যাণের ভিত্তিতে শ্রেষ্ঠ চা বাগানের প্রথম পুরস্কার পেয়েছে মধুপুর চা বাগান। দৃষ্টিনন্দন মোড়কের ভিত্তিতে শ্রেষ্ঠ কোম্পানি হয়েছে ইস্পাহানী টি কোম্পানি। নয় প্রকারের চা বাজারজাত করে বৈচিত্র্যময় চা পণ্য বাজারজাতকরণের ভিত্তিতে কাজী এ্যান্ড কাজী টি স্টেইট প্রথম স্থান অধিকার করেছে। সবচেয়ে বেশি চা রপ্তানি করে ফিনলে শ্রেষ্ঠ চা রপ্তানিকারকের প্রথম পুরস্কার পেয়েছে। শ্রেষ্ঠ ক্ষুদ্র চা চাষির পুরস্কার পেয়েছেন পঞ্চগড়ের সোহেল রানা। তেঁতুলিয়ার মোশাররফ হোসেন ক্ষুদ্র চা চাষে বিশেষ সম্মাননা পেয়েছেন।  
এর আগে, ২৩০ দশমিক ৯৭ কোটি টাকায় মতিঝিলে ২৪ কাঠা জায়গার ওপর ৩০ তলা ‘বঙ্গবন্ধু চা ভবনের’ নির্মাণ কাজের ভিত্তিস্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী। 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ


আসন ভাগাভাগিতে ‘সন্তুষ্ট নয়’ জাপা

আসন ভাগাভাগিতে ‘সন্তুষ্ট নয়’ জাপা

১১ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০১:০০












ব্রেকিং নিউজ












বিজয়ের মাস ডিসেম্বর

বিজয়ের মাস ডিসেম্বর

১১ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০১:১০