খুলনা | বৃহস্পতিবার | ১৯ এপ্রিল ২০১৮ | ৬ বৈশাখ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

দীর্ঘদিন ধরে টাইফয়েডের ভ্যাক্সিন সংকট খুলনায়

নিজস্ব প্রতিবেদক | প্রকাশিত ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ০২:০০:০০

টাইফয়েডের নাম শুনলেই জ্বর এসে যায়। এই জ্বর প্রতিরোধ ও নিরাময়ে মানুষের চেষ্টার শেষ নেই। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)-এর ওয়েব সাইটে দেয়া তথ্য মতে প্রতি বছর টাইফয়েডে ২ কোটি ২০ লক্ষ মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে, আর মৃত্যুবরণ করে ২ লক্ষ ২০ হাজার। আর এতে সব থেকে বেশি ঝুঁকিতে রয়েছে শিশুরা। অথচ টাইফয়েডের অনুমোদিত ভ্যাক্সিন আমদানি ও এর বাজারজাত বা চিকিৎসা নিয়ে স্পষ্ট ধারণা নেই খুলনার চিকিৎসকদের। সরকারি হাসপাতালগুলো ও টিকা প্রদানকারী সরকারি-বেসরকারি সংস্থাগুলো টাইফয়েডের টিকা নিয়ে রয়েছে অন্ধকারে। এদিকে টাইফয়েডের ঝুঁকি থেকে শিশুদের বাঁচতে এর ভ্যাক্সিন সহজলভ্য করতে দাবি জানিয়েছেন সচেতন অভিভাবকরা। 
বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সূত্র জানায়, টাইফয়েড সংক্রমণের উচ্চ মাত্রার ঝুঁকিতে রয়েছে শিশুরা। টাইফয়েড জ্বরের কারণ হচ্ছে সালমোনেলা টাইফি ব্যাকটেরিয়া। এই ব্যাকটেরিয়ায় সংক্রমিত ব্যক্তি দীর্ঘস্থায়ী জ্বর, মাথাব্যথা, বমিভাব, ক্ষুধামন্দা এবং কোষ্ঠকাঠিন্যে ভোগে। এই সালমোনেলা টাইফি ব্যাকটেরিয়া অত্যন্ত সংক্রামক এবং দূষিত খাবার ও পানির মাধ্যমে ছড়ায়। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও বিশুদ্ধ পানির অভাব রয়েছে এমন পরিবেশে এই রোগ ছড়ানোর সম্ভাবনা বেশি। সংক্রমণ ঠেকাতে টাইফয়েডের তিনটি টিকার অনুমোদন দেয়া হয়েছে। খুলনায় সর্বমোট তিনটি ভ্যাক্সিন-এর বাজারজাত রয়েছে। বিদেশী কোম্পানি মেড সেফ-এর টাইপেরিক্স, যার বাংলাদেশী স্পন্সর গ্লাক্সো ফার্মাসিউটিক্যাল। এছাড়া বিদেশী কোম্পানি স্যানভি এবনটিক্স-এর ভ্যাক্সিন ও ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস-এর ড্যাসপয়েড। তবে বিদেশ থেকে আমদানি করা এবং শিশুদের উপযোগী ওষুধের সংকট চলছে দীর্ঘদিন ধরে। 
খুলনার ওষুধের পাইকারি বাজার হেরাজ মার্কেট ঘুরে দেখা যায়, টাইফয়েডের ভ্যাক্সিনের আমদানি না থাকায় সাপ্লাই নেই স্থানীয় মার্কেটে দীর্ঘদিন। শুধু ইনসেপ্টার ড্যাসপয়েড-এর সরবরাহ রয়েছে। তবে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বলেছেন তুলনামূলকভাবে মেড সেফ বা সেনেফি অব্যনডিক্স-এর মত অতটা মানসম্মত নয় ইনসেপ্টা ফার্মার ড্যাসপয়েট। এদিকে ভ্যাক্সিন-এর সংকটে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন সচেতন অভিভাবকরা।
খুলনা মেডিকেল কলেজ-এর অধ্যক্ষ প্রফেসর ডাঃ আব্দুল আহাদ সময়ের খবরকে বলেন টাইফয়েড অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি রোগ। এতে শিশুরা বেশি ঝুঁকিতে থাকে সালমোনেলা টাইফি ব্যাকটেরিয়া অত্যন্ত সংক্রামক এবং দূষিত খাবার ও পানির মাধ্যমে এ রোগ ছড়ায়। এ রোগ নিয়ন্ত্রণে দেশী উৎপাদিত ভ্যাক্সিন-এর তুলনায় আমদানি করা ভ্যাক্সিনগুলোর মান ভালো।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ