খুলনা | মঙ্গলবার | ২৩ অক্টোবর ২০১৮ | ৮ কার্তিক ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

সড়ক দুর্ঘটনায় অল্পের জন্য প্রাণ  রক্ষা মোদির স্ত্রী যশোদাবেনের

খবর প্রতিবেদন | প্রকাশিত ০৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ০০:১০:০০

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির স্ত্রী যশোদাবেন সড়ক দুর্ঘটনায় অল্পের জন্য বেঁচে গেছেন। রাজস্থানের চিত্তরগড় এলাকায় গতকাল বুধবার এ দুর্ঘটনায় একজন প্রাণ হারায়।
চিত্তরগড়ের সাবডিভিশনাল ম্যাজিস্ট্রেট সুরেশ কার্তিক বলেন, ‘যশোদাবেন সুস্থ আছেন। তাঁর চেকআপ করা হয়েছে। তিনি এখন সুস্থ বোধ করছেন।’
চিত্তরগড় থেকে ৫৫ কিলোমিটার দূরের কোটা-চিত্তর মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। একটি ব্যক্তিগত গাড়িতে যাচ্ছিলেন যশোদাবেন। পথে একটি ট্রাকের সঙ্গে সংঘর্ষ হয় তাঁর গাড়ির। যশোদাবেনের গাড়িতে মোট সাতজন ছিলেন। তাঁদের মধ্যে বসন্ত ভাই নামের এক ব্যক্তি ঘটনাস্থলেই মারা যান।
মাত্র ১৭ বছর বয়সে যশোদাবেনের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল মোদির। কিন্তু রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের (আরএসএস) সংস্পর্শে গিয়ে মোদি সংসারধর্ম ত্যাগ করেন। সেই থেকে আর যোগাযোগ রাখেননি স্ত্রী যশোদাবেনের সঙ্গে। দীর্ঘ ৪৫ বছর পর নরেন্দ্র মোদি তাঁর স্ত্রীকে স্বীকৃতি দিয়েছেন গুজরাটের ভদোদরা আসনের জন্য মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময়। মনোনয়নপত্রে তাঁর স্ত্রীর নাম লেখেন যশোদাবেন। ১৯৬৮ সালে মোদি যশোদাবেনকে বিয়ে করেন। আরএসএসের সক্রিয় কর্মী হিসেবে মোদি সংসার ধর্ম ত্যাগ করেন। এরপর আর তিনি যশোদাবেনের খোঁজ রাখেননি। যশোদাবেনও চলে যান গুজরাটের মেহসানা জেলার ঈশ্বরওয়ারা গ্রামে ভাইদের কাছে। ভাইয়েরা তাঁর বিয়ে দিতে চাইলেও তিনি বিয়ে করেননি। একজন অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষিকা হিসেবে এখনো তিনি ওই গ্রামে পেনশন নিয়ে ভাইদের কাছে থাকছেন।
২০১৪ সালে একটি সংবাদপত্রকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নিজেদের দাম্পত্য জীবনকে চমৎকার ছিল বলেও দাবি করেন জাশোদাবেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের মধ্যে কখনো ঝগড়া হতো না। আমরা একসঙ্গে তিন বছর কাটিয়েছি। কিন্তু আমার কাছে মনে হয় যেন তিন মাস। এই সময়ে তাঁর (মোদি) সবকিছু আমি পড়ে ফেলেছি। তিনি আমাকে আর কখনো ফোন দেবেন বলে মনে হয় না।’ 
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ





যশোরে সাংবাদিক নোভার  আত্মহত্যা

যশোরে সাংবাদিক নোভার  আত্মহত্যা

২৩ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:৫৬