খুলনা | মঙ্গলবার | ২৩ জানুয়ারী ২০১৮ | ৯ মাঘ ১৪২৪ |

Shomoyer Khobor

নগরীতে বন্ধ ঘরে স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগে  মামলা : প্রবাসী স্বামী, শাশুড়ি ও ননদ পলাতক

নিজস্ব প্রতিবেদক | প্রকাশিত ১৪ জানুয়ারী, ২০১৮ ০২:৩০:০০

নগরীতে বন্ধ ঘরে স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগে  মামলা : প্রবাসী স্বামী, শাশুড়ি ও ননদ পলাতক

নগরীতে প্রবাসী স্বামীর হাতে স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গতকাল শনিবার সোনাডাঙ্গা মডেল থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।  ফাতেমা আক্তার কেয়া নামের ওই গৃহবধূ তার প্রবাসী স্বামী রিপন (৩৭) সহ চারজনের নাম উল্লেখ করে মামলাটি দায়ের করেছে। তাকে সোনাডাঙ্গাস্থ ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে রাখা হয়েছে। মামলার অপর আসামিরা হলেন রিপনের মা আয়েশা আক্তার (৫৫), বোন আফসানা মিমি (৩০) ও গোবরচাকা এলাকার মাসুদ রানা তুহিনের স্ত্রী এলিজা (৩২)। 
মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণী থেকে জানা গেছে, সোনাডাঙ্গা থানাধীন গোবরচাকা এলাকার মৃত মোকসেদের ছেলে প্রবাসী রিপন (৩৭)’র সাথে ২০১৬ সালের ২৯ ফেব্র“য়ারি গোপালগঞ্জ জেলার কোটালীপাড়ার মোঃ আজাদের মেয়ে ফাতেমা আক্তার কেয়া (১৭)’র বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই বিভিন্ন সময় কেয়াকে তার স্বামীসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা যৌতুকের জন্য চাপ দেয়। গরীব পরিবারের মেয়ে হওয়ায় শ্বশুর বাড়ির  যৌতুকের চাহিদা পূরণে ব্যর্থ হয় কেয়া। দিন দিন তার ওপরে নির্যাতনের মাত্রা বাড়তে থাকে। একপর্যায়ে  কেয়ার ব্যবহৃত স্বর্ণালংকার রিপন ও তার মা আয়েশা আক্তারসহ বোন আফসানা মিমি কেড়ে নেয়। তাকে দীর্ঘ দিন ধরে বন্ধ ঘরে আটকে রাখা হয়। দিনে এক বেলা (দুপুরে) বাড়ির কাজের লোক দিয়ে খাবার দেয়া হতো কিন্তু সকাল ও রাতে কোন খাবার দিতো না। নাবালিকা কেয়া ১০ম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত অবস্থায় বিদেশ ফেরত রিপনের সাথে ২০১৬ সালের ২৯ ফেব্র“য়ারি বিয়ে হয়। সর্বশেষ গত ৪ জানুয়ারি স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছে খবর পেয়ে পুলিশ শ্বশুর বাড়ির একটি বন্ধ ঘর থেকে ফাতেমা আক্তার কেয়াকে উদ্ধার করে হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে হস্তান্তর করেন। 
সোনাডাঙ্গা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মমতাজুল হক জানান মামলা দায়ের হয়েছে। এজাহারভুক্ত আসামিদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলছে। 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ



ঢাকা তৃতীয় বিভাগ ফুটবল লিগ শুরু

ঢাকা তৃতীয় বিভাগ ফুটবল লিগ শুরু

২৩ জানুয়ারী, ২০১৮ ০০:২৫