খুলনা | সোমবার | ২০ অগাস্ট ২০১৮ | ৫ ভাদ্র ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

দেবহাটায় ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট নিম্নমানের  গাইড বই ধরিয়ে দিচ্ছে ক্রেতাদের

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি | প্রকাশিত ১৩ জানুয়ারী, ২০১৮ ০০:১০:০০

দেবহাটায় ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট নিম্নমানের  গাইড বই ধরিয়ে দিচ্ছে ক্রেতাদের

সাতক্ষীরার দেবহাটায় ঢাকা থেকে কেজি দরে নিম্নমানের গাইড কিনে বাজারে তোলা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। শিক্ষকরা ভালো মানের বই চাইলেও কতিপয় লাইব্রেরী মালিক সিন্ডিকেট করে তা তুলছে না। তারা ঢাকা থেকে সিলেবাস বহির্ভুত কেজি দরে নিম্নমানের বই কিনে এনে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের কিনতে বাধ্য করছেন। ফলে ওই উপজেলার শিক্ষার মান ভেঙে পড়তে পারে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। 
একাধিক নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, সাতক্ষীরা জেলার দেবহাটা উপজেলায় মাধ্যমিক পর্যায়ে ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত হাজার হাজার কোমলমতি শিক্ষার্থীদের শিক্ষার মানোন্নয়ন এবং তাদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ সুনিশ্চিতে ভালো ফলাফল অর্জনের জন্য মানসম্মত সহায়ক বই সরবরাহ করে থাকে। কিন্তু শিক্ষা খাতে সরকারের যাবতীয় উন্নয়ন জনসম্মুখে ধূলিসাৎ করতে নামসর্বস্ব অস্তিত্বহীন কোম্পানির বই বাজারজাত করছে কতিপয় লাইব্রেরী মালিক। অভিযোগ উঠেছে  নাম সর্বস্ব কোম্পানীর কাছ থেকে মোটা টাকা নিয়ে এবারও উপজেলাতে শিক্ষকদের জিম্মি করে নিম্নমানের সহায়ক বই পাঠের চেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে পুস্তক বিক্রিয় সমিতির কয়েকজন ব্যবসায়ী। 
অভিভাবকদের অভিযোগ, বিগত বছরেও দেবহাটার শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের জন্য মানসম্মত সহায়ক বই নির্ধারণ করলেও, নির্ধারিত বই দেবহাটার কোন পুস্তক বিপণীতে বিক্রি করা হবে না বলে হুমকি দেয়া হয়েছিল। উপজেলা পুস্তক সমিতির কয়েকজন নেতা শিক্ষকদের একরকম জিম্মি করে তাদের পছেন্দের বই কিনতে বাধ্য করার চেষ্টা করেছিল। একপর্যায়ে তারা উপজেলার শিক্ষকদের জিম্মি করে কয়েক লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে এ চক্রের মনোনীত অতি নিম্নমানের সহায়ক বই প্রত্যেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠ্য করাতে শিক্ষক সমিতিকে বাধ্য করে। পরে বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশসহ জেলাব্যাপী ছড়িয়ে পড়লে প্রশাসনিক ব্যবস্থা হিসেবে এসব অসাধু ব্যবসায়ীদের এ অপকর্মের দায় গিয়ে পড়ে শিক্ষকদের উপর। কিন্তু প্রকৃত অপরাধী এসব ব্যবসায়ীদের শাস্তি না হওয়ায় আবারও তারা একই ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নের নকশায় মেতে উঠেছে। 
সূত্র আরো জানায়, এবারও সমিতির ওই কর্মকর্তাদের পছেন্দের বই পাঠ্য না করলে তারা ভালো মানের বই বিক্রি করবে না বলে শিক্ষকদের পরোক্ষভাবে হুমকি দিয়েছে। ফলে অসহায় হয়ে পড়েছেন শিক্ষকরা। তাই তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনের পক্ষ থেকে আইনি পদক্ষেপসহ যাতে করে শিক্ষকরা মানসম্মত সহায়ক বই জিম্মি না হয়েই পাঠ্য করতে পারে সে বিষয়ে সহযোগীতা চায় ভুক্তভোগী শিক্ষকসহ শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।
এব্যাপারে দেবহাটা উপজেলার মাধ্যমিক কর্মকর্তা আবদুল হাই জানান, এই ধরনের অভিযোগ আমরা পাইনি। অভিযোগ পেলে নিম্নমানের সহায়ক বই পাঠ্য করার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ












পুলিশ যখন শ্রমিক

পুলিশ যখন শ্রমিক

২০ অগাস্ট, ২০১৮ ০১:০২


ব্রেকিং নিউজ












পুলিশ যখন শ্রমিক

পুলিশ যখন শ্রমিক

২০ অগাস্ট, ২০১৮ ০১:০২