খুলনা | সোমবার | ২৩ জুলাই ২০১৮ | ৭ শ্রাবণ ১৪২৫ |

বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধিতে জন দুর্ভোগ

২৯ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:১০:০০

বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধিতে জন দুর্ভোগ


শাসক দল আওয়ামী লীগের দুই মেয়াদের মধ্যে ২০১০ সালের ১ মার্চ থেকে এ পর্যন্ত প্রায় সাড়ে সাত বছরে খুচরা গ্রাহক বা ভোক্তা পর্যায়ে আট বার এবং পাইকারী পর্যায়ে ছয় বার বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হল। গত ১ ডিসেম্বর থেকে এই দাম বৃদ্ধি কার্যকর করা হবে। এতে সরকারের আয় হবে ১৭শ’ কোটি টাকা। এ সরকার কেন ও কী কারণে বিদ্যুতের দাম বাড়লো তার কোন সন্তোষজনক উত্তর দিতে পারেনি বিইআরসি । তারপর বলা হচ্ছে খুচরা গ্রাহক পর্যায়ে ৫.৩ শতাংশ দাম বাড়ানো হলেও বিদ্যুতের নূন্যতম বিল প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে। মাসে ৫০ ইউনিটের কম বিদ্যুৎ ব্যবহার করা ৩০ লাখ দরিদ্র গ্রাহকের বিল এতে কমে যাবে। পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের প্রায় ৬০ লাখ গ্রাহকের মাসিক বিল বাড়াবে না। ন্যায় নীতি, ভোক্তাদের স্বার্থ অধিকার ও আইনের কোন সম্পর্ক নেই। গণশুনানী যে এক ধরণের প্রহসন এবং অকার্যকর ও অর্থহীন তা মূল্যবৃদ্ধি ঘোষণায় প্রতীয়মান হচ্ছে। খাদ্যসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতিতে দেশের খেটে খাওয়া মানুষ দিন মজুর, প্রান্তিক কৃষক, হত দরিদ্র বেসরকারি চাকুরিজীবী, স্বল্প আয়ের কর্মজীবী, পেশাজীবী, আয়হীন বেকার এবং সর্বস্তরের সাধারণ মানুষ অনেকটাই দিশেহারা হয়ে পড়েছে। স্বভাবিক ও স্বস্তিকর জীবন-যাপনের পরিবর্তে নিত্য অভাব অনাটনের মধ্যে তারা নিপতিত। বেশিরভাগ মানুষ খরচের খাত কাটছাঁট করেও স্বস্তি পাচ্ছে না। এমন শোচনীয় অবস্থায় সরকার বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে দিয়ে ধুকতে থাকা সাধারণ মানুষকে শোষণে নেমে পড়েছে। এতে জনগণের ভোগান্তি চরমে গিয়ে পৌঁছাবে। শিল্প কারখানার উৎপাদন খরচ বৃদ্ধি পেয়ে পণ্যমূল্যও আকাশ ছোঁয়া হবে।

 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ