খুলনা | বৃহস্পতিবার | ১৯ অক্টোবর ২০১৭ | ৩ কার্তিক ১৪২৪ |

Shomoyer Khobor
পারভেজ মোহাম্মদ

অজেয় দেশ প্রিয় শেখ রাজ্জাক আলী : আজ জন্মদিন

পারভেজ মোহাম্মদ | প্রকাশিত ৩১ জানুয়ারী, ২০১৭ ০১:০৭:০০


স্যালুলয়েডের ফ্রেমে মোটা কাঁচের নিচে বন্দী বুদ্ধিদীপ্ত চক্ষু যুগল। কোট প্যান্ট টাই পরিহিত আপরাইট ভদ্রলোক। আধুনিক বিজ্ঞান মনস্ক, আইন সচেতন, সংবিধান বিশেষজ্ঞ। সর্বহারাদের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে নিবেদিত, কুশিক্ষা দুরীকরণ, নির্মল সংস্কৃতির বিকাশ সাধন, বিশুদ্ধবাদী চিন্তার বাহক, আজন্ম নির্ভীক সংগ্রামের এক প্রতিমূর্তি, অজেয় দেশ প্রিয় মানুষটির নাম শেখ রাজ্জাক আলী। আজ ২৮ আগস্ট, এই গুণী মানুষটির শুভ জন্মদিন। চোখ বুজলেই একটি ছবি। উন্নত নাসা, দ্যুতিময় দন্তরাজি, খানিকটা চওড়া কপাল। সব মিলিয়ে ভেসে ওঠা একটি প্রতিবিম্ব। একজন গুণী মানুষ পৃথিবী থেকে চলে যাওয়ার পরও সমাজের কিছু দায় থেকে যায়।
তারই ধারাবাহিকতায় শেখ রাজ্জাক আলীর শুভানুধ্যায়ী, বন্ধু, স্বজন এবং তার জীবদ্দশায় প্রতিষ্ঠিত শেখ রাজ্জাক আলী ও মাজেদা আলী কল্যাণ ট্রাস্ট, এনতাজ আলী স্মৃতি পাঠাগারসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও শেখ রাজ্জাক আলী স্মৃতি সংসদ আজ রবিবার তাঁর বর্ণাঢ্য জীবনের  উপর আলোচনা, দোয়াসহ নানা কর্মসূচির আয়োজন করেছে।
কথা হয় সাবেক স্পীকার শেখ রাজ্জাক আলীর সহধর্মিনী ও স্মৃতি সংসদের সম্পাদক বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও নারী নেত্রী বেগম মাজেদা আলীর সাথে। মুঠোফোনে আলাপচারিতায় জানা গেল, আজ শুধু রাজ্জাক আলী নয় এই মহিয়সী নারীরও শুভ জন্মদিন। বোধ করি স্বমহিমায় প্রতিষ্ঠিত দু’জন জীবন সঙ্গীর এমন দৃষ্টান্ত বিরল।
তিনি জানান, তিনি আমার জীবনের সবচেয়ে কাছের মানুষ ছিলেন। তার শুভানুধ্যায়ী, বন্ধু ও স্বজনদের সাথে নিয়ে গঠিত শেখ রাজ্জাক আলী স্মৃতি সংসদ তাঁর বর্ণাঢ্য জীবনের এবং জীবন দর্শনের উপর গবেষণা, তাঁর সমাজ সেবামূলক কর্মকান্ডের ধারা অব্যাহত রাখা এবং জন্মÑমৃত্যুবার্ষিকী উদযাপনসহ সমাজের গুণী ব্যক্তিদের জাতীয় ভাবে শেখ রাজ্জাক আলী স্মৃতি পদক প্রদানসহ বিভিন্ন গবেষণা ও প্রকাশনার ব্যবস্থা করছে। ইতোমধ্যে শেখ রাজ্জাক আলী স্মারক গ্রন্থ প্রকাশ করা হয়েছে। শেখ রাজ্জাক আলী ১৯২৮ সালের ২৮ আগস্ট পাইকগাছা উপজেলার হিতামপুর গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণরেন এবং ২০১৫ সালের ৭ জুন নিজস্ব বাসভবনে ৮৭ বছর বয়সে ইন্তেকাল করেন। তিনি ’৫২ র ভাষা আন্দোলন, ’৬৯ এর গণঅভ্যুত্থান, ’৭১ মুক্তিযুদ্ধ এবং ৮২ থেকে ৯০’র স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে সক্রিয় ভাবে অংশগ্রহণ করেন। ১৯৭৫ সালে তিনি কারাবন্দী হয়েছিলেন। ১৯৯১ সালে ২০ মার্চ  তিনি আইন ও বিচার মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী নিযুক্ত হন, ৫ এপ্রিল জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার ও একই বছর ১২ অক্টোবর সর্বসম্মতিক্রমে স্পিকার নির্বাচিত হন।

 

 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




স্মরণ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আরো সংবাদ

মনে পড়ে রানা মনে পড়ে সেতু

মনে পড়ে রানা মনে পড়ে সেতু

১৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:২০


ব্রেকিং নিউজ