খুলনা | সোমবার | ২০ অগাস্ট ২০১৮ | ৫ ভাদ্র ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

এমপি সুজার কিডনী প্রতিস্থাপন আজ

নেতার জীবন বাঁচাতে কর্মীর আত্মত্যাগ

সোহাগ দেওয়ান | প্রকাশিত ১৩ নভেম্বর, ২০১৭ ০২:০০:০০

রাজনৈতিক নেতাকে ভালোবেসে তার জীবন বাঁচাতে শরীরের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ (কিডনী) দানের মধ্যদিয়ে অনন্য দৃষ্টান্ত গড়তে যাচ্ছেন খুলনা জেলা শ্রমিক লীগের এক কর্মী। বিষয়টি খুলনার রাজনৈতিক অঙ্গনে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে। কেউ কেউ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কিডনীদাতাকে তার এ মহতি পদক্ষেপের জন্য সাধুবাদ জানাচ্ছেন। আজ সোমবার সকাল ৮টায় সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খুলনা-৪ আসনের এমপি ও জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম মোস্তফা রশিদী সুজা’র কিডনী প্রতিস্থাপন করা হবে।
দু’টি কিডনী পুরোপুরি ড্যামেজ অবস্থায় সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আ’লীগ নেতা এস এম মোস্তফা রশিদি সুজা’র কিডনী দাতার নাম মোঃ আলম হাওলাদার। জেলা শ্রমিক লীগের একজন কর্মী তিনি। রূপসার শ্রীফলতলা ইউনিয়নের একজন মেম্বর। কিডনী দাতা মোঃ আলম হাওলাদারের ছেলে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি পারভেজ হাওলাদার। মোঃ আলম হাওলাদার তার ছেলে পারভেজ হাওলাদার এবং স্ত্রী বর্তমানে সিঙ্গাপুরের হাসপাতালে অবস্থান করছেন।   
হাসপাতালে নিবিড় পর্যবেক্ষণে থাকা মোঃ আলম হাওলাাদরের সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি। তবে পিতার কিডনী দানের বিষয়ে মোঃ আলম হাওলাদারের ছেলে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি পারভেজ হাওলাদার সিঙ্গাপুর থেকে এ প্রতিবেদককে মুঠোফোনে জানান, “এস এম মোস্তফা রশিদি সুজার মতো একজন গুণী রাজনীতিবিদের জীবন বাঁচাতে আমার বাবা যখন নিজের কিডনী দানের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, তখনও বিষয়টি আমার কাছে স্বাভাবিক মনে হচ্ছিল। কিন্তু যখন সকল পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে আমার বাবার কিডনীই প্রতিস্থাপনের জন্য (ফিটনেস রিপোর্ট) মনোনীত হয়। মুলতঃ তখন থেকে আমার মধ্যে অন্য রকম একটা ভালোলাগা কাজ করতে শুরু করে। নিজেকে ওই বাবার সন্তান হিসেবে ভাবতে অনেক গর্ববোধ করছি।” নেতা এস এম মোস্তফা রশিদী সুজা ও বাবার সুস্থতার জন্য সকলের কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন জেলা ছাত্রলীগের এ নেতা।  
জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ কামরুজ্জামান জামাল বলেন, একজন কর্মীর আত্মত্যাগ বলে দেয় নেতার প্রতি তার কতো ভালোবাসা। আলম হাওলাদার জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ এমপি সুজাকে কিডনী প্রদানের মাধ্যমে নেতা ও কর্মীর মধ্যকার ভালোবাসাকে আরো শক্তিশালী করে দিয়েছে।
জেলা আ’লীগের দপ্তর সম্পাদক এড. ফরিদ আহমেদ বলেন, কিডনী দাতা জেলা শ্রমিক লীগের নেতা মোঃ আলম হাওলাদার খুলনার রাজনীতিতে একটি ইতিহাস গড়ে যাচ্ছেন। যা আমাদের ও ভবিষ্যৎ রাজনীতিতে একটি সুন্দর পরিবেশ সৃষ্টিতে সহায়ক হবে।  
নগর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান এমপি বলেন, নেতার জীবন বাঁচাতে একজন কর্মীর এই আত্মত্যাগ আমাদের অনেক কিছু শিখতে সাহায্য করবে। নগর আ’লীগের সভাপতি তালুকদার আব্দুল খালেক এমপি বলেন, নেতা ও কর্মীর বন্ধন অনেক মধুর। শ্রমিক লীগ কর্মী আলম হাওলাদার নেতার প্রতি তার ভালোবাসাকে বাস্তবে রূপ দিয়েছেন।
জেলা আ’লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ হারুনুর রশিদ বলেন, আমরা সারাজীবন ধরে রাজনীতি করে আসছি, কর্মী সমর্থক ও সাধারণ মানুষের মঙ্গলের জন্য। জীবনের একটি দুঃসময়ে একজন নেতা তার কর্মীর কাছ থেকে এ রকমই প্রাপ্তি আশা করেন। এমপি সুজার জন্য কিডনী প্রদান করে শ্রমিক লীগ নেতা আলম হাওলাদার একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো। দু’জনেরই সুস্থতার জন্য তিনি সৃষ্টিকর্তার কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন।
উল্লেখ্য, গত কয়েক মাস আগে মোস্তফা রশিদী সুজা এমপি’র দু’টি কিডনিই ড্যামেজ হয়ে গেছে বলে পরীক্ষা-নিরীক্ষায় ধরা পড়ে। সেই থেকেই তিনি সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা নিচ্ছেন। কিডনি প্রতিস্থাপনের জন্য ডাক্তারদের পরামর্শে তাকে গত মাসে সিঙ্গাপুরে নেয়া হয়। আজ সোমবার তার একটি কিডনী প্রতিস্থাপন হতে যাচ্ছে। সিঙ্গাপুরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মোস্তফা রশিদী সুজা এমপি’র পাশে রয়েছেন স্ত্রী খোদেজা রশিদী ও ছেলে সুকর্ত রশিদী ও দুই কন্যা। তার সুস্থতা কামনায় খুলনাসহ দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন পরিবারের সদস্যরা।

 

বার পঠিত

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ









কেমন থাকবে ঈদের দিনের আবহাওয়া

কেমন থাকবে ঈদের দিনের আবহাওয়া

১৯ অগাস্ট, ২০১৮ ১২:৫৪





ব্রেকিং নিউজ












পুলিশ যখন শ্রমিক

পুলিশ যখন শ্রমিক

২০ অগাস্ট, ২০১৮ ০১:০২