খুলনা | সোমবার | ১১ ডিসেম্বর ২০১৭ | ২৭ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪ |

Shomoyer Khobor

নির্বাচনে যাবো কিনা অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা : মোহাম্মাদ শাজাহান

‘ব্যাংকিং সেক্টর ও শেয়ার বাজার থেকে লক্ষ কোটি টাকা পাচারে সরকার জড়িত’

বিশেষ প্রতিনিধি | প্রকাশিত ১১ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:১১:০০

বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান, সাবেক এমপি মোহাম্মাদ শাজাহান বলেছেন, বিএনপি নির্বাচনমুখী দল। নির্বাচনের জন্য বিএনপি’র নেতা-কর্মীরা প্রস্তুত। কিন্তু সেক্ষেত্রে অবশ্যই অন্য আর দশটা দলের মতোই বিএনপিকে সভা সমাবেশ করতে দিতে হবে, নির্বাচনী মাঠে সহ-অবস্থান নিশ্চিত করে অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন দিতে হবে।
মোহাম্মাদ শাজাহান আরও বলেন, সরকার বা তার পেটোয়া বাহিনী আমাদের তো কোথাও নামতেই দিচ্ছে না। তিনি বলেন, আজ প্রতিটা মুহূর্তে ক্ষমতাসীনরা সংবিধান সংবিধান করে চিৎকার করছে, ৯০ এ তিন জোটের রুপরেখা কি সংবিধানে ছিল ? ৯৬তেও তো আমরা সংবিধান পরিবর্তন করে আ’লীগের দাবি মেনে নিয়েছিলাম। তত্ত্বাবধায়ক সরকারে ফিরে গিয়েছিলাম। তিনি বলেন, সংবিধান কোনও মহাকাব্য নয় যে পরিবর্তন করা যাবে না। তিনি বলেন, সরকার আমাদের দাবি মানলে ভালো না হলে অবস্থা বুঝেই আমরা ব্যবস্থা নেব। বাড্ডায় নিজ বাসভবনে একান্ত সাক্ষাৎকারে মোহাম্মাদ শাজাহান এসব কথা বলেন।
দেশের বিরাজমান পরিস্থিতি, বিএনপি’র সাম্প্রতিক গণজোয়ার, বিএনপি’র প্রতি সরকারের বৈরি আচরণ, দেশ চালাতে ক্ষমতাসীন দলের সীমাহীন ব্যর্থতা সহ নানা বিষয়ে তিনি খোলামেলা কথা বলেন। বিদেশী কূটনীতিকরা বা অতিথিরা বলছেন, নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার বা তত্ত্বাবধায়ক সরকার নেই এমন প্রশ্নের উত্তরে মোহাম্মাদ শাজাহান বলেন, তাদের দেশে প্রকৃত অর্থেই গণতন্ত্র আছে। রাজনৈতিকসহ অবস্থান আছে। কিন্তু আমাদের দেশের প্রকৃত অবস্থা কি তাই? তাদের দেশে কি বিনা ভোটে এমপি হওয়ার সিস্টেম আছে। সেই প্রেক্ষাপটেই আমাদের দেশে তত্তবাধায়ক সরকার বা নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকারের কোনও বিকল্প নেই।  
মোহাম্মাদ শাজাহান, সাবেক এমপি। নোয়াাখলি জেলা বিএনপি’র সভাপতি, একই সঙ্গে বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান। জিয়া পরিবারের আস্থাভাজন। দলের চেয়ারপারসন বেগম জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পরেই দলে এখন তার অবস্থান। সারা দেশে বিএনপি পুনর্গঠনে বেগম জিয়ার নির্দেশে কাজ করে যাচ্ছেন।  
নবম সংসদের এমপি মোহাম্মাদ শাজাহান বলেন, আমরা জনগণের ভোট জনগণের হাতে ফিরিয়ে দিতে চাই। সেই লক্ষেই আমাদের আন্দোলন, সংগ্রাম চলছে। আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সাম্প্রতিক বক্তব্যের কঠোর সমালোচনা করেন এই নেতা । তিনি বলেন, কাদের সাহেব প্রায়ই বলেন, বিএনপি’র সঙ্গে কোনও সমঝোতা নয়। দৃঢ়তার সঙ্গে তিনি বলেন, আমরাও আ’লীগের সঙ্গে কোনও সমঝোতা করে নির্বাচনে যেতে চাই না। সমঝোতা মানেই আসন ভাগাভাগী। বিএনপি একটি পৃথক দল। দেশের জনপ্রিয় দল। আমাদের নিজস্ব রাজনীতি আছে। রাজনৈতিক দর্শন আছে। আমরা কেন সমঝোতা করে আসন ভাগাভাগির রাজনীতি করতে যাবো?
মোহাম্মাদ শাজাহান বলেন, চট্টগ্রাম ট্যুর দেখার পরেও যদি সরকারের টনক না নড়ে তাহলে আমাদের কিছুই বলার নেই। দেশে কোনও আন্দোলনের কর্মসূচি নেই, এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আমরা এখন দল পুনর্গঠন করছি। দেশের মানুষ আজ সরকারের দমন, পীড়ন, চাপাবাজিতে ক্ষুদ্ধ। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে দিশেহারা। মানুষ আজ সরকারের পতন চায়। সরকারের পরিবর্তন চায়। বিএনপিকে আবারও ক্ষমতায় দেখতে চায়। কারণ বিএনপি আমলেই মানুষ সুখে, শান্তিতে ছিল। বর্তমান সরকারকে চরম দুর্নীতিবাজ আখ্যা দিয়ে মোহাম্মাদ শাজাহান বলেন, ব্যাংক সেক্টর, শেয়ার বাজার থেকে লক্ষ কোটি টাকা সরকার দেশের বাইরে পাচার করেছে। বিএনপি ক্ষমতায় আসলে আওয়ামীলীগের যাবতীয় কুকর্মের বিচার করা হবে।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, বিনা ভোটের এই সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে নিজস্ব পেটোয়া বাহিনিতে পরিনত করেছে। আমাদের নেতা কর্মীদের নামে হাজার হাজার মামলা দিয়ে বাড়ি ছাড়া করা হয়েছে। অফরন, গুম করা হচ্ছে দলের জনপ্রিয় নেতা কর্মীদের। এমনকি, বেগম জিয়াকে মিথা মামলা দিয়ে আজ তাকে নির্বাচনে অযোগ্য ঘোষণার চক্রান্ত চলছে।

 

 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন






ব্রেকিং নিউজ



বিজয়ের মাস ডিসেম্বর

বিজয়ের মাস ডিসেম্বর

১১ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০১:১৬