খুলনা | সোমবার | ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ | ৭ ফাল্গুন ১৪২৪ |

Shomoyer Khobor

সাতক্ষীরায় গবেষণায় তথ্য : কীটনাশকের ক্রমবর্ধমান ব্যবহারে হুমকির মুখে জনস্বাস্থ্য

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি | প্রকাশিত ০১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:২০:০০

সাতক্ষীরায় গবেষণায় তথ্য : কীটনাশকের ক্রমবর্ধমান ব্যবহারে হুমকির মুখে জনস্বাস্থ্য

সাতক্ষীরায় কীটনাশক ব্যবহার ও এর ক্ষতিকর প্রভাব বিষয়ক গবেষণা কর্মের ফলাফল  উপস্থাপন উপলক্ষে এক মিট দ্য প্রেস এন্ড ডায়ালগ গতকাল শনিবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব হলরুমে অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ রিসোর্স সেন্টার ফর ইন্ডিজেনাস নলেজ (বারসিক) ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা লোকজ যৌথভাবে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে কীটনাশক ব্যবহার ও এর ক্ষতিকর প্রভাবের উপর বারসিক পরিচালিত এক গবেষণার ফলাফল উপস্থাপন করা হয়।
লোকজের নির্বাহী পরিচালক দেব প্রসাদ সরকারের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বারী, জেলা নাগরিক কমিটির সভাপতি আনিছুর রহিম, সাংবাদিক সুভাষ চৌধুরী, আব্দুল ওয়াজেদ কচি, এম কামরুজ্জামান, মোঃ ইয়ারব হোসেন, ড. দিলীপ কুমার দেব, গোলাম সরোয়ার, মোঃ আব্দুস সামাদ, মোঃ আব্দুল জলিল প্রমুখ।
ডায়ালগে জানানো হয়, কীটনাশকের ক্রমবর্ধমান ব্যবহারে হুমকির মুখে পড়ছে জনস্বাস্থ্য। কীটনাশক ক্রয় থেকে শুরু করে ছিটানো, ছিটানোর সময় প্রতিরোধ মূলক ব্যবস্থা গ্রহণ না করা, ছিটানোর পরপরই কৃষি ক্ষেতে প্রবেশ, ছিটানোর যন্ত্র ধৌতকরণ, কীটনাশকের পাত্রের বহুমুখী ব্যবহার, বাতাসের প্রতিকূলে বা বিক্ষিপ্তভাবে কীটনাশক ছিটানো, কীটনাশক ব্যবহারের প্রশিক্ষণ না থাকা প্রভৃতি কারণে কীটনাশকের দীর্ঘমেয়াদি বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ। সম্প্রতি বারসিক পরিচালিত এক গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে।
অনুষ্ঠানে আরো জানানো হয়, সাতক্ষীরার ৬০০ কৃষকের উপর পরিচালিত ওই গবেষণায় উত্তরদাতাদের মধ্যে ৯৮ দশমিক ৩৪ ভাগ কৃষক কীটনাশক ব্যবহার করেন। এর মধ্যে ৬১ দশমিক ৫৩ ভাগ কৃষক ক্যান্সার, লিভারের সমস্যা, ডায়াবেটিস, শারীরিক ও মানসিক বিকাশে বাধাগ্রস্ত হওয়া, শ্রবন সমস্যা, কিডনির সমস্যাসহ নানা রোগ আক্রান্ত।
গবেষণায় বলা হয়েছে, গবেষণাধীন কৃষকরা দৈনিক, সাপ্তাহিক বা মাসিক ভিত্তিতে কীটনাশক ব্যবহারের ক্ষেত্রে কীটনাশক মিশ্রিত খাবার খেয়ে, কীটনাশক স্প্রে করার পরপরই হাত বা শরীর না ধুয়ে খাবার খেয়ে, পানি দূষণের মাধ্যমে, প্রতিবেশির ব্যবহৃত কীটনাশক থেকে ও গ্রাউন্ড স্প্রেসহ নানাভাবে কীটনাশক দ্বারা আক্রান্ত হন।
গবেষণায় আরও বলা হয়েছে, কীটনাশক স্প্রে করার সময় উত্তরদাতাদের মধ্যে ৭৫ ভাগ কৃষকের উপর সরাসরি ছিটকে পড়েছে এবং কৃষি ক্ষেত থেকে এক কিলোমিটার এর চেয়ে কম দূরত্বে বসবাস করে ৮৭ ভাগ কৃষক। উত্তরদাতাদের মধ্যে ৫৪ ভাগ কৃষক কখনই কীটনাশক ছিটানোর সময় প্রতিরোধমূলক পোশাক পরেন না।
গবেষণায় তথ্য অনুযায়ী, কৃষকরা সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করেন সিনজেনটা, এসিআই, মস্কো, পদ্মাসহ বিভিন্ন কোম্পানির কীটনাশক। সরকার নিষিদ্ধ বাসুডিন ১০ জিআরসহ অন্যান্য ক্ষতিকর কীটনাশকও ব্যবহার করেন কৃষকরা। কীটনাশক ব্যবহারের যন্ত্র বা কৃষক নিজেই হাত-পা বা শরীর ধৌত করেন সেচ নালা, পুকুর, ডোবা, টিউবওয়েল, নদীসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে। এর মাধ্যমেও বিষক্রিয়া ছড়িয়ে পড়ে। ফলে জলজ মাছ ও জীববৈচিত্র্য ধ্বংস হচ্ছে।
উত্তরদাতাদের ৮৩ ভাগ কৃষক কখনই কীটনাশকের গায়ের লেবেল বা লিফলেট পড়েন না। আর ব্যবহৃত কীটনাশকের খালি পাত্র ঘর সাজানো, খাবার রাখা, পানি রাখা, খেলনা, খাবারজাত দ্রব্য প্যাকেটজাত করাসহ অন্যান্য কাজে ব্যবহার করেন ১৬ ভাগ কৃষক। এছাড়া ব্যবহৃত কীটনাশকের পাত্র যেখানে-সেখানে ফেলার কারণেও দূষণ ছড়ায়। ৯০ ভাগ কৃষক কীটনাশক ব্যবহারে কোন প্রশিক্ষণ পাননি।
গবেষণায় জনস্বাস্থ্য ও পরিবেশ রক্ষায় ৬ দফা সুপারিশ করা হয়। এগুলো হলো, কীটনাশক ক্রয়, ব্যবহার, সংরক্ষণ ও সেটি নষ্ট করার সময় ব্যক্তিগত সাবধানতার পাশাপাশি পরিবেশও যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, সেবিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি। কীটনাশকের পাত্রগুলো পরিবারের অন্যান্য কাজে ব্যবহার না করে পরিবেশ সম্মত উপায়ে নষ্ট করা এবং স্ব স্ব কোম্পানিকে এই দায়িত্ব নিয়ে যারা খালিপাত্র ফেরত দেবে তাদের জন্য পুরস্কারের ব্যবস্থা করতে হবে। কীটনাশক যাতে কৃষিকাজে ব্যতীত অন্য কাজে ব্যবহার না করে সে বিষয়ে সকলকে সচেতন করতে হবে। ভেজাল ও নিম্নমানের কীটনাশক ব্যবহার বন্ধ করতে হবে। নিবন্ধিত পরিবেশক ব্যতীত অন্য কেউ যাতে কীটনাশক বিক্রি করতে না পারে সেবিষয়ে নজরদারি বাড়াতে হবে। সর্বোপরি উৎপাদনকারী, ভোক্তা ও সরকারের কৃষি বিভাগের সমন্বিত প্রচেষ্টাতেই কীটনাশকের ব্যবহার কমিয়ে মাটির ক্ষতি ও জনস্বাস্থ্য রক্ষা করা সম্ভব।
অনুষ্ঠানে মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে গবেষণার ফলাফল উপস্থাপন করেন, বারসিক ইনস্টিটিউট অব এ্যাপলাইড স্ট্যাডিজের শিক্ষার্থী আসাদুল ইসলাম ও শেখ তানজির আহমেদ।

 

 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ

যেখানে ৭১ কথা বলে

যেখানে ৭১ কথা বলে

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:২৬

একাত্তরের খুলনা বিজয়

একাত্তরের খুলনা বিজয়

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:২২



পারুলিয়ায় গণহত্যা- ১৯৭১

পারুলিয়ায় গণহত্যা- ১৯৭১

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:২১



যুদ্ধকালীন স্মৃতি

যুদ্ধকালীন স্মৃতি

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:১৭

ছবি আঁকায় পরাণ জুড়ায়

ছবি আঁকায় পরাণ জুড়ায়

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:১৫

বিজয়ের অর্জন প্রশ্ন পাশাপাশি

বিজয়ের অর্জন প্রশ্ন পাশাপাশি

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:১৪

শহীদ পরিবার থেকে বলছি

শহীদ পরিবার থেকে বলছি

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:১৫



ব্রেকিং নিউজ