খুলনা | বৃহস্পতিবার | ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৫ আশ্বিন ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

খুলনায় বঙ্গবন্ধু’র নামে গ্রন্থ

শাহীন রহমান | প্রকাশিত ১৪ অগাস্ট, ২০১৭ ২৩:৫৬:০০

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের খুলনা সফর নিয়ে স্থানীয় সাংবাদিক কাজী মোতাহার রহমান বাবু একটি বই প্রকাশ করতে যাচ্ছেন। তিনি বইটির নাম দিয়েছেন ‘খুলনায় বঙ্গবন্ধু’।
জানা গেছে, বঙ্গবন্ধু খুলনায় জীবদ্দশায় মোট ২৭ বার সফর করেছেন। বঙ্গবন্ধুর জীবনী নিয়ে আঞ্চলিক পর্যায়ে এই ধরনের বই প্রকাশের উদ্যোগ বাংলাদেশে এই প্রথম। বইটির প্রকাশক ও লেখক খুলনার সিনিয়র সাংবাদিক, কাজী মোতাহার রহমান বাবু জানান, জাতির জনকের জন্মশত বার্ষিকীতে আগামী ১৫ মার্চ তিনি এই বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করবেন। সরস প্রকাশনী থেকে ১২০ পৃষ্ঠার এই বইটি বের হচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর অপ্রকাশিত সব কাহিনী এই বইতে থাকছে। একই সঙ্গে দুর্লভ বেশ কিছু ছবিও থাকছে।
৯০’র দশকের খুলনা প্রেস ক্লাব ও সাংবাদিক ইউনিয়নের এক সময়কার সাধারণ সম্পাদক কাজী মোতাহার রহমান বাবু এক সময়ে সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধুর প্রতি গভীর শ্রদ্ধাবোধ থাকলেও লেখক বঙ্গবন্ধুর বাকশাল কর্মসূচি সমর্থন করেননি। জানান, খুলনার সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর আত্মার সম্পর্ক ছিল। বঙ্গবন্ধুর ভাই শেখ আবু নাসের খুলনার বাসিন্দা হওয়ায় বঙ্গবন্ধুর যাতায়াত ছিল খুলনায়। বঙ্গবন্ধুর বাবা শেখ লুৎফর রহমানও এখানে থাকতেন। খুলনার দৌলতপুরে বঙ্গবন্ধুর পারিবারিক ব্যবসাও রয়েছে। লেখক জানান, দেশ স্বাধীনের আগে খুলনা জেলখানাতে তিনি জেলও খেটেছেন প্রায় তিন মাসের মতো। ওই সময়ে খুলনা জেলখানায় বঙ্গবন্ধু কোনও ডিভিশন পাননি। ১৯৭২ সালে খুলনা সরকারি মহিলা মহাবিদ্যালয়ে  বঙ্গবন্ধু একটি নারকেল গাছ লাগিয়েছিলেন, সেই নারকেল গাছ আজও স্মৃতি হিসেবে বেঁচে আছে।
এর বাইরে, ছেলে হিসেবে বাবাকেও দেখে গেছেন বঙ্গবন্ধু খুলনায় গিয়ে। ছাত্রনেতা, যুবনেতা, শিল্পমন্ত্রী, দলের সভাপতি, এমন কি প্রধানমন্ত্রী হিসেবেও তিনি দফায় দফায় খুলনা সফর করেছেন। ৪৮ সালের ৮ মার্চ বঙ্গবন্ধু প্রথম খুলনা সফর করেন। এই সফরে গিয়ে খুলনা বিএল কলেজে তিনি জনসভায় বক্তৃতা করেন। ভাষা আন্দোলন সংগঠিত করতে তিনি সেবার প্রথম বারের মতো খুলনা গিয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধু সর্বশেষ খুলনা সফরে গিয়েছিলেন ৭৫ সালের ৬ মার্চ।
লেখক জানান, খুলনাতে ৬ দফা ঘোষণা করেছিলেন তৎকালীন খুলনা মিউনিসিপ্যাল পার্কে। এই পার্ক এখন শহিদ হাদিস পার্ক হিসেবে পরিচিত। ৬ দফা ঘোষণাকালে খুলনার প্রশাসন ৬টি কামান রেখেছিলেন জনসভার পাশেই। এছাড়া ধান কাটার পারিশ্রমিক নিয়ে কডন প্রথা বিরোধী আন্দোলনের নেতৃত্বও দিয়েছিলেন প্রয়াত বঙ্গবন্ধু। এই আন্দোলনে বঙ্গবন্ধু সফলও হয়েছিলেন। এমন আরও অনেক চমকপ্রদ ও অজানা অনেক কিছুই রয়েছে।

 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ

বদলে যাবে মংলা বন্দর

বদলে যাবে মংলা বন্দর

০৩ জুলাই, ২০১৮ ০২:০১













ব্রেকিং নিউজ



আজ-কালের মধ্যে  বৃষ্টির সম্ভাবনা 

আজ-কালের মধ্যে  বৃষ্টির সম্ভাবনা 

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০১:০৫







মাইলফলকের সামনে মাশরাফি

মাইলফলকের সামনে মাশরাফি

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:৫৩