খুলনা | বৃহস্পতিবার | ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭ | ৩০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪ |

Shomoyer Khobor

ছয় বছরেও তৃণমূল পর্যায়ে কমিটি গঠন হয়নি নগর ও জেলা মহিলা দলের

মোহাম্মদ মিলন | প্রকাশিত ০৭ অগাস্ট, ২০১৭ ০২:১০:০০

মেয়াদোত্তীর্ণ খুলনা জেলা ও নগর মহিলা দল গেল ছয় বছরেও তৃণমূলে সংগঠনকে চাঙ্গা করতে পারেনি। এখনও গঠন করা সম্ভব হয়নি সকল থানা, ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন কমিটি। জেলার কয়েকটি উপজেলায় কমিটি গঠন করা হলেও মহানগরের কোন থানা ও ওয়ার্ড কমিটি গঠন করা হয়নি। ফলে দীর্ঘদিন এসব কমিটি গঠন না হওয়ার কারণে তৃণমূলে নারী নেতৃত্বে বিকাশ যেমন ঘটছে না তেমনি তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা ক্ষুব্ধ ও হতাশ। যে কারণে অনেক কর্মী হয়ে পড়ছে নিষ্ক্রিয়।
সংগঠনের নেতারা জানায়, ২০১২ সালের ১৮ মার্চ কেন্দ্র থেকে সৈয়দা রেহানা ঈসাকে সভাপতি, আজিজা খানম এলিজাকে সাধারণ সম্পাদক ও কোহিনূর বেগমকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ১০১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা দেয়া হয়। ঘোষিত নগর কমিটি দীর্ঘ ৬ বছরেও ওয়ার্ড, থানা পর্যায়ে কোন কমিটি দিতে পারেনি। নগর ও জেলার কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে। তবে এখন সেন্টার ভিত্তিক কমিটি গঠন, ঈদের পর ওয়ার্ড ও থানা কমিটি গঠন করা হবে। এরপর নগর শাখার সম্মেলনের আয়োজন করা হবে বলে নগর শাখার নেতৃবৃন্দ জানিয়েছেন।
অন্যদিকে নগর কমিটি গঠনের আগে এড. তছলিমা খাতুন ছন্দাকে সভাপতি ও পূর্ণিমা হোসেন চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক করে ৯ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করা হয়। পরবর্তীতে ১০১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি করা হয়। জেলার পাইকগাছা থানা ও পৌরসভা, দিঘলিয়া, তেরখাদা ও রূপসা থানা কমিটি গঠন করা হয় হয়েছে বলে সংগঠনের নেতারা জানিয়েছেন। তবে বটিয়াঘাটা, দাকোপ থানা ও পৌরসভা, ফুলতলা, ডুমুরিয়া এবং কয়রায় সংগঠনটির কোন কমিটি এখনও গঠন করা হয়নি।    
নগরীর ১০নং ওয়ার্ডের মহিলা দলের কর্মী ডলি বেগম ও মমতাজ বেগম বলেন, দীর্ঘদিন ধরে দলের নানা কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে আসছি। মহিলাদের একত্রিত করে দলীয় কর্মসূচিতে যায়। অথচ দলের কোন কমিটিতে এখনও স্থান পায়নি। তবে পদ-পদবি না থাকায় কর্মী হিসেবেই পরিচয় দিতে হয়। মহিলা দলের কমিটি হলে স্থান পাওয়া যেত। তবে এখনও কমিটি গঠনের কোন তৎপরতা দেখা যাচ্ছে না। আমাদের মতো অনেকেই পদ-পদবি ছাড়াই দলের জন্য কাজ করছে। অনেকেই অনিয়মিত হয়ে যাচ্ছে। এমন অভিযোগ সংগঠনের অনেক নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সংগঠনের সাবেক এক নেতা বলেন, বর্তমান কমিটি দীর্ঘ প্রায় ছয় বছরেও কোন কমিটি গঠন করতে পারেনি। কমিটি গঠন না হওয়ার কারণে তৃণমূলে নারী নেতৃত্বে বিকাশ ঘটছে না। ফলে ওয়ার্ড, থানা পর্যায়ে দ্রুত কমিটি গঠন করা প্রয়োজন বলে তিনি মন্তব্য করেন।      
নগর মহিলা দলের সভাপতি সৈয়দা রেহানা ঈসা বলেন, ২০১২ সালে কমিটি ঘোষণার পর পূর্বের কমিটি জটিলতা সৃষ্টি করে। এসব কারণে ওয়ার্ড, থানা পর্যায়ে কমিটি গঠন করা সম্ভব হয়নি। তবে এখন ওয়ার্ড ও থানা কমিটির করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে।
সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আজিজা খানম এলিজা বলেন, বেশ কয়েকবার ওয়ার্ড পর্যায়ে কমিটি করার বিষয়ে উদ্যোগ নিয়েও করা সম্ভব হয়নি। এক্ষেত্রে বিএনপি’র শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের সহায়তাও পাওয়া যায়নি। তিনি বলেন, গত বৃহস্পতিবার দলীয় কার্যালয়ে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় মহানগরীর ৩১টি ওয়ার্ডের সেন্টার ভিত্তিক কমিটি গঠন করে আগামী ১৫ আগস্টের মধ্যে নগরে জমা দেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। আর ঈদের পর ওয়ার্ড ও থানা কমিটিগুলো গঠন করা হবে। এরপর নগর কমিটির সম্মেলনের আয়োজন করা হবে।  
জেলা মহিলা দলের সভাপতি এড. তছলিমা খাতুন ছন্দা বলেন, প্রত্যেক থানায় মহিলা দলের কার্যক্রম চলছে। বিভিন্ন সময়ে থানা কমিটিগুলো গঠন করা হয়েছে।
জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক সেতারা সুলতানা বলেন, পাঁচটি উপজেলা ও একটি পৌরসভায় কমিটি রয়েছে। বাকী চারটিতে এখনও কমিটি দেয়া সম্ভব হয়নি। তবে দ্রুত দেয়ার বিষয়ে আলোচনা চলছে।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ





‘কথা হওয়া দরকার’

‘কথা হওয়া দরকার’

২০ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:১০









ব্রেকিং নিউজ

শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস আজ

শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস আজ

১৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:৪৫