খুলনা | শনিবার | ২১ এপ্রিল ২০১৮ | ৮ বৈশাখ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

সাতক্ষীরায় অজ্ঞাত রোগে মারা যাচ্ছে ঘেরের চিংড়ি : দিশেহারা চাষিরা

রুহুল কুদ্দুস, সাতক্ষীরা | প্রকাশিত ১২ এপ্রিল, ২০১৭ ০১:৪০:০০

মৌসুমের শুরুতেই সাতক্ষীরার বিভিন্ন এলাকায় অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে ঘেরের চিংড়ি মাছ মারা যাচ্ছে। জেলার ৫০ হাজার চিংড়ি ঘেরের মধ্যে কমপক্ষে ৮০ শতাংশ ঘেরে এই অজ্ঞাত রোগ দেখা দিয়েছে। পোনা ছেড়ে প্রায় তিন পর গ্রেডে পরিণত হয়ে বিক্রির প্রাক্কালে ব্যাপকহারে মাছ মারা যাওয়ায় হতাশাগ্রস্থ হয়ে পড়েছেন চাষীরা। বিশেষ করে ঋন দেনা করে যারা চিংড়ি ঘেরে বিনিয়োগ করেছে তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।
এদিকে চিংড়িতে হঠাৎ মড়ক লাগার বিষয়টি নিশ্চিত করে সাতক্ষীরা জেলা মৎস্য বিভাগ জানায়, ইতিমধ্যে চিংড়ির রোগ নির্ণয় করার জন্য বাগেরহাট মৎস্য গবেষণা ইন্সটিটিউটের একটি প্রতিনিধি দল সাতক্ষীরায় এসে ঘেরের আক্রান্ত চিংড়ির নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে গেছেন। রিপোর্ট এলে সেই মত চাষিদের পরামর্শ দেয়া হবে।
বাংলাদেশ চিংড়ি চাষি সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও সাতক্ষীরার বিশিষ্ট চিংড়ি উৎপাদনকারী ডাক্তার আবুল কালাম বাবলা জানান, তার ৪০০ বিঘার একটি চিংড়ি ঘেরের প্রায় ৯৫ শতাংশ মাছ ইতিমধ্যে অজ্ঞাত রোগে মরে গেছে। আগামী ২০ থেকে ২৫ দিনের মধ্যে এসব মাছ গ্রেড হয়ে বিক্রির উপযোগি হওয়ার কথা। কিন্তু কোনো কিছু বুঝে উঠার আগেই হঠাৎ ঘেরের মাছ মরা শুরু করে। মাত্র কয়েক দিনের মধ্যেই প্রায় সব মাছ মরে গেছে। এতে তার প্রায় দেড় থেকে ২ কোটি টাকার মত ক্ষতি হয়ে গেছে। তিনি বলেন, আক্রান্ত চিংড়ি মাছের গায়ে তেমন কোনো ক্ষত চিহ্ন লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। আবার জেলা মৎস্য বিভাগও বলতে পারছে না এটি কি রোগ?। অথচ দুই থেকে ৩ দিনের মধ্যে প্রতিটি ঘেরের ৯৫ শতাংশ মাছ মরে গেছে। এভাবে হঠাৎ করে মড়ক দেখা দেয়ায় জেলার চাষিরা একেবারে সর্বশান্ত হয়ে পড়েছে। এতে করে জেলায় অন্ততঃ ৫০০ কোটি টাকার উপরে ক্ষতি হয়েছে বলে তিনি জানান।
একই কথা বললেন, জেলার আশাশুনি উপজেলার গুনাকরকাটি গ্রামের চিংড়ি চাষি আব্দুল বারি। তিনি চলতি মৌসুমে ২৫০ বিঘা জমির একটি চিংড়ি ঘের করেছেন। গত ৩/৪ দিনের মধ্যে ঘেরের প্রায় ৮০ শতাংশ চিংড়ি মরে সাফ হয়ে গেছে। এতে করে তার অন্তত ৪০ থেকে ৪৫ লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে। তিনি আরো বলেন, তার এলাকার প্রায় প্রতিটি ঘেরের একই অবস্থা। অনেকের নতুন করে পোনা ছাড়ার সঙ্গতিও নেই। এঅবস্থা চলতে থাকলে ভবিষ্যতে চিংড়ি চাষের বিকল্প অন্য কিছু ভাবতে হবে বলে তিনি জানান।
বাগদা চিংড়ি উৎপাদনে আরো একটি সম্ভাবনাময় উপজেলা দেবহাটা। বছরে বিপুল পরিমান বাগদা চিংড়ি রপ্তানি করা হয়ে থাকে এখান থেকে। কিন্ত চলতি মৌসুমে উৎপাদন শুরুর পুর্বমুহুর্তে উপজেলার অধিকাংশ চিংড়ি ঘেরে দেখা দিয়েছে অজ্ঞাত মড়ক। এতে উপজেলার প্রায় ৯০ শতাংশ ঘেরের চিংড়ি মরে গেছে।
উপজেলার গাড়াখাল (ধেড়েমারি) এলাকার চিংড়ি চাষি আব্দুর রউফ, নজরুল ইসলাম, হাফিজুর রহমান ও গোল্ডেন হোসেন জানান, গত ৭/৮ দিনের ব্যবধানে তাদের ঘেরের অধিকাংশ চিংড়ি মাছ মরে গেছে। এসব মাছ আগামী ২০/২২ দিনের মধ্যে গ্রেড হতো। কিন্ত হঠাৎ করে অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে ঘেরের মাছ মরে সয়লাব হয়ে গেছে।
সদর উপজেলার বিনেরপেতা এলাকায় সাড়ে তিন’শ বিঘা জমির পৃথক চার খন্ডের চিংড়ি ঘেরের মালিক কবির বাবু জানান, এবার একটু দেরীতে তারা ঘেরে এপর্যন্ত প্রায় ১৫ লাখ রেনু পোনা ছেড়েছেন। বর্তমানে ঘেরের মাছ প্রায় হরিণা চিংড়ির আকারের মত হয়েছে। কিন্তু হঠাৎ দুই দিন আগে থেকে ঘেরে মাছ মরা শুরু হয়েছে। কি কারণে মাছ মারা যাচ্ছে তা বুঝতে পারছি না। এভাবে যদি মাছ মারা যায় তাহলে ফের পোনা ছাড়া তাদের পক্ষে মুশকিল হয়ে যাবে। তার আশে পাশের প্রায়ই ঘেরে একই অবস্থা বলে তিনি জানান।
সাতক্ষীরা জেলা মৎস্য অফিস সুত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে সাতক্ষীরার ৬টি উপজেলায় ৪৯ হাজার ১৬৩টি ঘেরে বাগদা চিংড়ি চাষ করা হয়েছে। এরমধ্যে সাতক্ষীরা সদর উপজেলাতে ২ হাজার ১০৫টি, তালায় ১ হাজার ২৯৫টি, দেবহাটায় ২ হাজার ৮২৯টি, আশাশুনিতে ১৩ হাজার ২১৭টি, কালিগঞ্জে ১৪ হাজার ৫৫৯টি ও শ্যামনগরে ১৫ হাজার ১৫৮টি। সুত্র আরো জানায়, ৬টি উপজেলার প্রায় সাড়ে ৩ লাখ চাষি ৬১ হাজার হেক্টর জমিতে বাগদা চিংড়ি চাষ করেছেন।
সাতক্ষীরা জেলা মৎস্য অফিসার মোঃ শহীদুল ইসলাম জানান, হঠাৎ করেই কি অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে চিংড়ি মরে যাচ্ছে তা এই মুহুর্তে বলা সম্ভব নয়। তবে রোগ নির্ণয় করার জন্য কয়েকদিন আগে বাগেরহাট মৎস্য গবেষণা ইন্সটিটিউটের একটি প্রতিনিধি দল সাতক্ষীরায় এসে আক্রান্ত চিংড়ির নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে গেছেন। তাদের ওই রিপোর্ট পেলে তখই জানা যাবে কি রোগে চিংড়ি মারা যাচ্ছে। এরপর চাষিদের প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেয়া যাবে বলে তিনি জানান।

 

বার পঠিত

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ





গলদার মূল্য হ্রাসে রেকর্ড

গলদার মূল্য হ্রাসে রেকর্ড

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০২:১০








ব্রেকিং নিউজ